আজ মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ ইং, ০৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সংঘর্ষ, কেন্দ্র দখল, ভোট বর্জন, সহিংসতা ও তিনটি লাশের বিনিময়ে শেষ হল সন্দ্বীপের ইউপি নির্বাচন

Published on 31 March 2016 | 11: 35 am

সোনালী নিউজ প্রতিবেদন ::: সংঘর্ষ, কেন্দ্র দখল, ভোট বর্জন, সহিংসতা ও তিনটি লাশের বিনিময়ে শেষ হল সন্দ্বীপের ১২ টি ইউনিয়নের ইউপি নির্বাচন ২০১৬।

চট্টগ্রাম জেলার  সন্দ্বীপ উপজেলার বাউরিয়া ইউনিয়নের একটি ভোট কেন্দ্র দখলের সময় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জামাল উদ্দীন এর সমর্থক, বিদ্রোহী প্রার্থী জিল্লুর রহমান এর সমর্থ ক এবং পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষে গুলিতে তিনজন নিহত হয়েছেন। এসময় একজন পুলিশ সদস্যও গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

৩১ মার্চ বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের চর বাউরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালেয় ভোট কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এই কেন্দ্রে বিএনপি, আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নিহতরা হলেন ইবরাহিম, জামাল ও সানা উল্লাহ।

৫ নম্বর ওয়ার্ডের চর বাউরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালেয় ভোট কেন্দ্রে সন্ত্রাসী কায়দায় কেন্দ্রে ঢুকে ভোটের বাক্স ছিনতাই করতে গেলে পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সংঘর্ষ বেঁধে যায়। পরে ত্রিমুখী সংঘর্ষে গুলিতে তিনজন নিহত হয়। এতে রাঙ্গামাটি থেকে ইলেকশন ডিউটি করতে আসা এক পুলিশ সদস্যও গুলিবিদ্ধ হয়। তবে পুলিশের গুলিতে কেউ মারা যায়নি সেটি নিশ্চিত। এখন আমরা তদন্ত করে দেখছি, কাদের গুলিতে এরা মারা গেছে।’

গুলিবিদ্ধি পুলিশ সদস্যকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানান পুলিশ সুপার।

প্রসঙ্গত, সন্দ্বীপ উপজেলায় ১২ ইউনিয়নে ভোটার রয়েছেন সন্দ্বীপের মোট ভোটার ১ লাখ ৪৪ হাজার ৯০৬ জন। পুরুষ ভোটার ৭০ হাজার ৯৮২ ও মহিলার ভোটার ৭৩ হাজার ৯২৪ জন। ভোটকেন্দ্র ১২২টি ও ভোটকক্ষ ৬১২টি। অস্থায়ী ভোটকেন্দ্র ৪ ও অস্থায়ী ভোটকক্ষ ২৪টি। মোট ভোটকেন্দ্র ১৪৯০টি। অস্থায়ী ভোটকেন্দ্র ২৮টি ও অস্থায়ী ভোটকক্ষ ১৯৭টি।

 

12512761_1709580879326567_1692302794698551577_nহরিশপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুত্বর আহত জাতীয় পার্টির প্রার্থী এম এ ছালাম।

11219628_1556887387937661_2720486493227831561_n

দুর্বৃত্তের গুলিতে হরিষপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল হান্নান রানা

12919732_1583773811939522_8278128610413779053_n

গাছুয়া ৪ নং ওয়ার্ডে দুই গ্রুপের গুলাগুলির সময় ক্ষতবিক্ষত এক জন

গাছুয়া ৪নং ওয়ার্ড দখল, বের করে দেয়া হয়েছে প্রতিপক্ষ দলের এজেন্টদের। প্রকাশ্যে নৌকা ও তালা প্রতীকে সীল মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

17817_1583773825272854_9025313841164786461_n

হারামিয়া ৭ নং ওয়ার্ডের প্রতি পক্ষের হামলায় মারাত্মক ভাবে আহত এক এজেন্ট 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন