আজ বৃহঃপতিবার, ২১ জুন ২০১৮ ইং, ০৭ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



আনুষ্ঠানিকতা শুরু হজের প্রস্তুত মিনা

Published on 22 September 2015 | 4: 09 am

পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা আজ মঙ্গলবার শুরু হচ্ছে। আল্লাহতা’লার অতিথিদের স্বাগত জানাতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে মক্কা নগরীর মিনা উপত্যকা। তাঁবুর শহর বলে পরিচিত এই মিনাতেই স্থানীয় সময় অনুযায়ী আজ জিলহজ মাসের ৮ তারিখে আনুষ্ঠানিকভাবে হজের পর্দা উঠছে। আগামী পাঁচদিন চলবে হজের আনুষ্ঠানিকতা।
ইতিমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান জড়ো হয়েছেন মিনায়। তারা হজের প্রথম দিন আজ সেখানে অবস্থান করবেন। আগামীকাল বুধবার সূর্যোদয়ের পরপরই হাজিরা সমবেত হবেন মক্কা থেকে প্রায় ১৩ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ঐতিহাসিক আরাফাত ময়দানে। আরাফাত ময়দানেই লাখো হাজির কণ্ঠে উচ্চারিত হবে ‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লা-শারিকালাকা লাব্বাইক’ ধ্বনি। প্রায় সাড়ে ১৪০০ বছর আগে এ আরাফাত ময়দানেই মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) লক্ষাধিক সাহাবির সামনে ঐতিহাসিক বিদায় হজের ভাষণ দিয়েছিলেন।
মক্কা ও মদীনার পবিত্র দুই মসজিদের দায়িত্বে থাকা সৌদি বাদশাহ সালমান হজযাত্রীদের আরামের সঙ্গে হজের আনুষঙ্গিক রীতি-রেওয়াজ পালনে সকল ধরনের সেবা দিতে নির্ধারিত সংস্থাগুলোকে কড়া নির্দেশ দিয়েছেন।
স্থানীয় সংবাদপত্র ‘সৌদি গেজেট’ জানিয়েছে, শনিবার পর্যন্ত ১৩ লাখ ৭২ হাজার ১৪৮ জন ধর্মপ্রাণ মানুষ হজের জন্য মক্কায় পৌঁছেছেন। এদের মধ্যে ৩০৮ জন হাজি মারা গেছেন। আজ মঙ্গলবার হজের প্রথম দিনে মিনায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ৩০ লাখ মানুষ জমায়েত হবেন বলে আশা করা হচ্ছে।
সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেজর জেনারেল মনসুর আল তুর্কি এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, হাজিদের নিরাপত্তার জন্য এক লাখ নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েন করেছে সৌদি সরকার। এদের মধ্যে সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা ইউনিট, ট্রাফিক পুলিশ এবং জরুরি বেসামরিক প্রতিরক্ষা বাহিনীর কর্মীরাও রয়েছেন। তাদের দায়িত্ব হচ্ছে ভিড় নিয়ন্ত্রণ এবং হাজিদের নিরাপত্তার দেখভাল করা। তাদের সঙ্গে আরো রয়েছেন সেনা ও ন্যাশনাল গার্ড কর্মীরাও।
এছাড়া মক্কা থেকে মদীনা সফরের দীর্ঘ পথ জুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে ৫ হাজারের মত সিসিটিভি ক্যামেরা। হজের আগে গত বৃহস্পতিবার মক্কায় একটি সন্ত্রাসবাদ বিরোধী সম্মিলিত মহড়ায় অংশ নিয়েছে সৌদি আরবের সেনা ও পুলিশের যৌথবাহিনী।
আজ মিনায় আরো অন্তত তিন হাজার নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েন করা হবে। তারা সেখানে হজের শেষ দিন পর্যন্ত জরুরি ভিত্তিতে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন। মিনার চারপাশে ২৭৬টি মোটরবাইকে চড়ে টহল দেবে নিরাপত্তা বাহিনী। তারা তাঁবুতে অবস্থানরত হাজিদের দেখভাল করবেন।
এছাড়া হাজিদের স্বাস্থ্যগত সমস্যা দেখভালের জন্যও নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। সৌদি স্বাস্থ্য বিভাগ হজ উপলক্ষে মক্কা ও মদীনায় বিশেষ স্বাস্থ্য টিম এবং এম্বুলেন্স মোতায়েন করেছে। এছাড়া সম্প্রতি মক্কার মসজিদুল হারামে ক্রেন দুর্ঘটনায় আহতদের হজ করানোর জন্যও বিশেষ গাড়ির ব্যবস্থা করেছে সৌদি সরকার। আহত হাজিরা ওইসব গাড়িতে করেই মক্কা ও মদীনার পবিত্র স্থানগুলো সফর করবেন।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন