আজ বৃহঃপতিবার, ১৬ আগষ্ট ২০১৮ ইং, ০১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের শিষ্টাচার

Published on 25 July 2018 | 8: 15 am

আজকের জুমু’আর নামাযের খুতবার বিষয় ছিলো: ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ ইত্যাদি অনলাইন মাধ্যমের ফিতনা। খতিব সাহেব কুরআনের যে আয়াতগুলো থেকে আজ উদ্ধৃতি দিলেন তার কয়েকটি আয়াত এখানে উল্লেখ করছি। শিরোনামগুলো আমার দেওয়া।

১। সূত্রের নির্ভরযোগ্যতা ভালোভাবে যাচাই না করে কোনো সংবাদ শেয়ার করব না।

49_6

“হে মুমিনগণ, কোনো ফাসেক যদি তোমাদের কাছে কোনো সংবাদ নিয়ে আসে, তবে ভালোভাবে যাচাই করে দেখবে, যাতে তোমরা অজ্ঞতাবশত কোনো সম্প্রদায়ের ক্ষতি করে না বসো এবং পরে নিজেদের কৃতকর্মের জন্যে অনুতপ্ত না হও।” [সূরা হুজুরাত, ৪৯:৬]

২। নির্লজ্জতা ও মন্দ কাজের প্রসারে অংশ নেব না।

24_21

“হে মুমিনগণ, তোমরা শয়তানের অনুগামী হয়ো না। কেউ শয়তানের অনুগামী হলে শয়তান তো সর্বদা অশ্লীল ও অন্যায় কাজেরই নির্দেশ দেবে। …” [সূরা নূর, ২৪:২১]

৩। কোনো মানুষের, বিশেষত মহিলাদের, সম্মানহানি করব না।

24_4

“যারা সতী-সাধ্বী নারীকে অপবাদ দেয়, তারপর চারজন সাক্ষী উপস্থিত করে না, তাদেরকে আশিটি চাবুক মারবে এবং তাদের সাক্ষ্য কখনও গ্রহণ করবে না। তারা নিজেরাই তো ফাসেক।” [সূরা নূর, ২৪:৪]

৪। অনুমানের ভিত্তিতে কোনো কথার প্রচার ও প্রসার করব না।

49_12

“হে মুমিনগণ, অনেক রকম অনুমান থেকে বেঁচে থাকো। কোনো কোনো অনুমান গোনাহ। তোমরা কারও গোপন ত্রুটির অনুসন্ধানে পড়বে না এবং একে অন্যের গীবত করবে না। তোমাদের মধ্যে কেউ কি তার মৃত ভাইয়ের গোশত খেতে পছন্দ করবে? এটাকে তো তোমরা ঘৃণা করে থাকো। তোমরা আল্লাহকে ভয় করো। নিশ্চয়ই আল্লাহ তাওবা কবুলকারী, পরম দয়ালু।” [সূরা হুজুরাত, ৪৯:১২]

আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা আমাদের সবাইকে এই কথাগুলোর গুরুত্ব অনুধাবন করার তৌফিক দিন। অনলাইন মিডিয়া ব্যবহারের ক্ষেত্রে অতীতে আমরা যেসব ভুলভ্রান্তি করেছি তা তিনি মাফ করে দিন। মনে রাখতে হবে, হাশরের ময়দানে আমাদের প্রতিটি স্ট্যাটাস আপডেট, প্রতিটি সেলফি, প্রতিটি লাইক ও প্রতিটি শেয়ারের জন্য জবাব দিতে হবে। ডিলিট বাটনে ক্লিক করলেও আল্লাহ মাফ না করলে সেদিন আমাদের কারও রেহাই নেই।

আসুন, আমরা সবাই দায়িত্বশীলতার সাথে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করি।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন