আজ বৃহঃপতিবার, ১৬ আগষ্ট ২০১৮ ইং, ০১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সন্দ্বীপের সন্তান পায়েলের লাশ উদ্বার

Published on 23 July 2018 | 12: 19 pm

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ভাটেরচর এলাকার সেতুর নিচে নদীতে ভাস্যমান অবস্থায় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে গজারিয়া থানা পুলিশ। তার পড়নের প্যান্টের পকেটে থাকা মোবাইল নাম্বারে তার মামার সাথে যোগাযোগ করে জানা যায়, তার নাম মো: সাইদুর রহমান (২৮)। সে চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ থানার হালিশহর এলাকার গোলাম মাওলার ছেলে। বিজয় টিভি ও আমার দেশ অনলাইনের গজারিয়া প্রতিনিধি মো: আমিরুল ইসলাম (নয়ন) এর উক্ত সংবাদটি পায়েলের স্বজন ও সন্দ্বীপবাসীকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে দিল। একজন তরুণ এভাবে না ফেরার দেশে চলে যাওয়া কোন ভাবেই মানতে পারছেনা স্বজনরা । সোনালী মিডিয়া পরিবারের পক্ষ থেকেও আমরা গভীর ভাবে শোকাহত। 

একুশে টিভি অনলাইনে প্রকাশিত সংবাদ ও পায়েলের স্বজনদের সুত্রে জানা যায়, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ ৫ম সেমিস্টারে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী সাইদুর রহমান পায়েল (২১) ঢাকা ফেরার পথে মেঘনা ব্রিজের কাছে প্রকৃতির ডাকে সারাদিতে গাড়ি থেকে নামার পরে, গাড়ি ছেড়ে দেওয়ায় সে আর বাসে উঠতে পারেনি। সারাদিন তাঁর খবর না পেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে তার মামা গোলাম সরওয়ার্দী বিপ্লব নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানায় একটি জিডি করে।  পরদিন দিন গজারিয়া থানার পাশে একটি পুকুরে নিথর হয়ে ভাসতে দেখা যায় পায়েলের মরদেহ। বিষয়টি রহস্যজনক। পুলিশের অনসন্ধানে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসবে প্রত্যাশা স্বজনদের।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ-এর ৫ম সেমিস্টারের ছাত্র মো. সাইদুর রহমান পায়েল (২১) গত ২১ জুলাই হানিফ পরিবহন-(নং ৯৬৮৭) চট্টগ্রাম থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা করে। তার সিট নাম্বার (এ-৩)। এ সময় তার সঙ্গে ছিল বন্ধু আকিবুর রহমান আদর (২১)।
 
পায়েলের পিতার নাম গোলাম মাওলা, মাতা- কহিনুর মাওলা। গ্রামের  বাড়ি সন্দ্বীপের পূর্ব হরিশপুর ইউনিয়নে। মামা কামরুজ্জামান চৌধুরী টিটু জানান, আমার ভাগিনা গত (শনিবার) ঢাকা যাওয়ার পথে মেঘনা ব্রিজের পরে গাড়ি থামলে সে সময় পায়েল (প্রকৃতির ডাকে) সাড়া দিতে বাস থেকে নামে। তার অপেক্ষা না করে গাড়ি ছেড়ে দেয় ফলে সে গাড়িতে আর উঠতে পারেনি। এমন কি তার মোবাইলও গাড়িতে থেকে যায়।
সকালে পায়েলের মা কহিনুর বেগম ছেলের মোবাইল নাম্বারে ফোন করলে পাশের সিটের থাকা তার রুমমেট আদর জানান পায়েল গাড়িতে নেই।’
 
সে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ না করায় নিখোঁজ পায়েলের মামা গোলাম সরওয়ার্দী বিপ্লব নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানায় পায়েলকে নিখোঁজ দেখিয়ে একটি জিডি দায়ের করেছেন।
 
গাড়ির সুপার ভাইজার জনিকে (৩০) ফোন করলে সে নিখোঁজ পায়েলের মামা বিপ্লবকে জানায়, গত ২১ জুলাই চট্টগ্রামের এ কে খান গেইটের কাউন্টার থেকে রাত ১০টায় টিকেট কেটে রওনা করে। রাত আনুমানিক ৪.৩০ দিকে বন্দর থানাধীন ক্যাসেল রেস্টুরেন্টের কাছে গাড়ি এসে পৌঁছালে গাড়ি জ্যামের কবলে পরে এমন সময় সে (পায়েল) গাড়ি থেকে বের হয়। জ্যাম ছেড়ে রাস্তা ফাঁকা হলে গাড়ি দ্রুত ছেড়ে দেয় ফলে সে গাড়িতে উঠতে পারেনি।’
 
উল্লেখ্য, সাইদুর রহমান পায়েল ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় একটি ফ্ল্যাটে বন্ধুদের নিয়ে ভাড়া থাকতেন। তার পিতা গোলাম মাওলা, মাতা- কহিনুর বেগম আই ব্লক হালিশহরে বসবাস করেন। তার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের জেলার সন্দ্বীপ উপজেলার পূর্ব হরিশপুর গ্রামে।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন