আজ বুধবার, ১৮ জুলাই ২০১৮ ইং, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলা নিহতদের আর্থিক সম্মাননা দিচ্ছে সরকার

Published on 21 March 2018 | 3: 03 am

ঢাকার গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলায় নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সম্মাননা দিচ্ছে সরকার। প্রতি পরিবারকে ১৫ হাজার ইউরোর একটি করে সম্মাননা চেক দেয়া হবে। আগামী ২৫ মার্চ এক অনুষ্ঠানে নিহতদের পরিবারের কাছে চেক তুলে দেবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বাংলাদেশের ফায়াজ আইয়াজ হোসেন, ইশরাত জাহান আখন্দ, অবিন্তা কবির এবং ভারতের তারিশি জৈনর পরিবারের সদস্যরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। নিহত ইতালীয় ৯ জন ও জাপানি সাতজনের সম্মাননা চেক মিশন/দূতাবাসের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দেশে পাঠানো হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

জানতে চাইলে অনুষ্ঠানের আয়োজক কমিটির সভাপতি ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. সামছুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ‘২৫ মার্চ বাংলাদেশের তিনজন ও ভারতের একজনের পরিবারের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বাকিদের সংশ্লিষ্ট দেশের মিশনের মাধ্যমে সম্মাননা চেক পৌঁছে দেয়া হবে।’

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় ইতালীয় ৯ জন, জাপানিজ সাতজন, ভারতীয় একজন ও বাংলাদেশি তিন নাগরিক নিহত হন। ওই ঘটনায় দু’জন পুলিশ কর্মকর্তাও নিহত হন। পরের দিন সকালে সেনাবাহিনীর কমান্ডো অভিযানে ছয় জঙ্গি নিহত হয়। আইএসের পক্ষ থেকে এদের মধ্যে পাঁচজনকে তাদের ‘সৈনিক’ বলে দাবি করে হামলার দায় স্বীকার করা হয়েছে।

নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সম্মাননা দিতে উদ্যোগ নিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। এর অংশ হিসেবে প্রতি পরিবারকে ১৫ হাজার ইউরো সমপরিমাণ ২০ পরিবারের জন্য দুই কোটি ৭৯ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয় অর্থ বিভাগ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, একজন জাপানিজ নাগরিক ছাড়া নিহত সবার পরিবার আর্থিক সম্মাননা গ্রহণের সম্মতি জানিয়েছে। আর এ সম্মাননা চেক মিশনের মাধ্যমে পাঠানোর অনুরোধ জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

আর্থিক সম্মাননা চেক প্রদান উপলক্ষে ২৫ মার্চ রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ অডিটোরিয়ামে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. সামছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বিশেষ অতিথি থাকবেন জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন ও পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. জাবেদ পাটোয়ারী।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য ইতিমধ্যে বাংলাদেশের ফায়াজ আইয়াজ হোসেন, ইশরাত জাহান আখন্দ, অবিন্তা কবির এবং ভারতের তারিশি জৈন-এর পরিবারের সদস্যদের চিঠি পাঠানো হয়েছে। ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলের ছাত্রী ভারতীয় নাগরিক তারিশি জৈন ছুটিতে ঢাকায় এসেছিলেন। তার বাবা-মা কর্মসূত্রে ঢাকায় থাকেন। আর বাংলাদেশের তিন জনের মধ্যে ছিলেন ট্রান্সকম গ্র“পের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমানের নাতি ফারাজ আইয়াজ হোসেন, ঢাকার ইন্সটিটিউট অব এশিয়ান ক্রিয়েটিভসের সাবেক পরিচালক ইশরাত জাহান আখন্দ এবং ল্যাভেন্ডার গ্র“পের মালিক মনজুর মোরশেদের নাতনি অবিন্তা কবির।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন