আজ শুক্রবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৮ ইং, ১৪ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



অনিবন্ধিত ইডেন রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ উচ্ছেদ করে অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করতে হবে….নগর ছাত্রলীগ

Published on 01 February 2018 | 6: 11 am

আশরাফ উদ্দিন টিটু :চট্টগ্রাম মহানগরের অনিবন্ধিত স্কুল সমূহ উচ্ছেদের দাবী জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম মহানগর।সেই সাথে এসকল স্কুলের অনিয়মে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবী এসেছে নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু ও সাধারন সম্পাদক নুরুল আজিম রনির যৌথ বিবৃতিতে।নগর ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে বলা হয়,নগরীর আনাচে কানাচে নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে অনুমোদনবিহীন স্কুল গড়ে উঠেছে।প্রশাসনের চোখের সামনে এসকল অবৈধ স্কুল বছরের পর বছর শিক্ষার নামে মূলত শিক্ষা বানিজ্য করছে।সহজ সরল অভিভাবকদের ফুসলিয়ে ছাত্র অভিভাবকদের কাছ থেকে বিশাল অংকের টাকা লুটপাট করছে।এসব স্কুলে নিবন্ধিত শিক্ষক না থাকার ফলে নূন্যতম শিক্ষার মানদন্ড মেনে চলার প্রবনতাও থাকেনা।অনিবন্ধিত স্কুলগুলোর কারনে প্রতিবছর পিএসসি জেএসসি এসএসসি পরীক্ষায় বিশাল সংখ্যক পরীক্ষার্থী অকৃতকার্য হচ্ছে।এছাড়া নানা সময়ে শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারনার বিষয়টিও আমরা পরিলক্ষিত করছি।

এদিকে অনুমোদনহীন একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠানটির প্রিন্সিপালের বিরুদ্ধে এসএসসি নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্যদের অর্থের বিনিময়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করার সুযোগ করে দেওয়ার নামে বিপুল পরিমান অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে আজ।নগরীর হালিশহরের ইডেন রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল আব্দুল আওয়ালের বিরুদ্ধে এসময় ভুক্তভোগী ৩৮ জন শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন ও স্কুলের প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে দেন।এসময় নগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক গোলাম সামদানী জনি ও সদস্য আরাফাত রুবেল অভিভাবকদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন।বিক্ষোভ প্রদর্শনকালে নগর ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে বক্তব্যকালে এ দুই ছাত্রনেতা দাবী করেন,আব্দুল আওয়াল দীর্ঘদিন যাবত অনুমোদনহীন এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা করছেন।শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আড়ালে তিনি জামায়াতে ইসলামীর কার্যক্রমেও সংশ্লিষ্ট ছিলেন।এলাকার সহজ সরল অভিভাবকদের ফুসলিয়ে নানাভাবে প্রতারনার মাধ্যমে তিনি অর্থ আত্মসাত করে আসছিলেন।হালিশহর এলাকার অন্য দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পি এইচ আমিন উচ্চ বিদ্যালয় ও গরীবে নেওয়াজ স্কুলের এসএসসি নির্বাচনী পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়া ৩৮ শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের ফুসলিয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করানোর প্রতিশ্রুতি দিয়ে মোটা অংকের টাকা আত্মসাত করেছেন।ইডেন রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধীনে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করার সুযোগ আছে জানিয়ে তিনি প্রতিটি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ২০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছেন।বর্তমানে আব্দুল আওয়াল পলাতক রয়েছেন।এলাকার অসহায় ও সহজ সরল অভিভাবকরা তার মিথ্যা প্রতিশ্রুতিতে সরল বিশ্বাসে টাকা প্রদান করলেও মূলত চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড এই অনিয়মটি কোনভাবে গ্রহন করতে পারেনা।এসময় পলাতক আব্দুল আওয়ালকে গ্রেফতার দাবী করা হয় ও সেই সাথে অনিবন্ধিত এসকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ করতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় ও জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন ছাত্রলীগ নেতারা।

উল্লেখ্য একই এলাকায় অনিবন্ধিত আরেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হালিশহর পাবলিক স্কুলের ১১৫ জন জেএসসি পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরন না করে অর্থ আত্মসাতের ঘটনা অল্প কিছুদিন আগে সকলের নজরে এসেছিলো।পরীক্ষা শুরুর ৪৮ ঘন্টা আগে নগর ছাত্রলীগের হস্তক্ষেপে ঐ প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষকে আটক করা হয়েছিলো।পরে ছাত্রলীগের অনুরোধ ও মানবিক বিবেচনায় চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড অসহায় ১১৫ জন জেএসসি পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করার সুযোগ করে দিয়েছিলো।


Advertisement

আরও পড়ুন