আজ মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ ইং, ০২ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



৮৫ ব্যাচ থেকে আরও ৩ জন সচিব হচ্ছেন শিগগির

Published on 24 January 2018 | 3: 46 am

প্রশাসন ক্যাডারের ১৯৮৫ ব্যাচ থেকে আরও ৩ জনকে ভারপ্রাপ্ত সচিব করা হচ্ছে। এ তালিকায় রয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা একজন অতিরিক্ত সচিব, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের অধীন একটি অধিদফতরে কর্মরত মহাপরিচালক এবং অপরজন স্থানীয় সরকার বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিব। এ মাসের শেষদিকে ৩ জন সচিবের চাকরির মেয়াদ শেষ হওয়ায় তদস্থলে তাদেরকে পদায়ন করা হবে।

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব সুরাইয়া বেগমের এনডিসি চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ শেষ হবে ৩১ জানুয়ারি। এ পদে ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পেতে পারেন বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কর্মরত একজন অতিরিক্ত সচিব। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মাকসুদুল হাসান খানের অবসরোত্তর ছুটিতে যাওয়ার কথা পহেলা ফেব্রুয়ারি। এখানে ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পাবেন মহাপরিচালক পদে কর্মরত একজন অতিরিক্ত সচিব।

এ ছাড়া পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব কেএম মোজাম্মেল হকের চাকরির মেয়াদ শেষ হবে ৩০ জানুয়ারি। এখানে ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ পেতে পারেন স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব। এ সংক্রান্ত একটি সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাব অনুমোদন হলে শিগগির আদেশ জারি হবে। এদিকে ভারপ্রাপ্ত সচিব নিয়োগের প্রস্তাবিত এ বিষয়টি জানাজানি হয়ে যাওয়ায় ৮৫ ব্যাচের নিয়োগপ্রত্যাশী কর্মকর্তাদের মধ্যে সরকারের গুডবুকে থাকা দাবিদার কর্মকর্তারা ক্ষোভ-অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

তাদের কয়েকজন মঙ্গলবার প্রতিবেদককে বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তাদের কোনো দলীয় পরিচয় থাকার কথা না, থাকলেও নানা কারণে আমরা এখন আওয়ামীপন্থী কর্মকর্তা হিসেবে সর্বজনস্বীকৃত। ঝুঁকি নিয়ে সরকারের স্বার্থে অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজও করে যাচ্ছি। কিন্তু সচিব পদে পদায়নের ক্ষেত্রে দেখতে পাচ্ছি ভিন্নচিত্র।’ তারা হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ‘আমাদের মূল্যায়ন আর কবে হবে? একে একে ব্যাচ থেকে ১১ জনকে ভারপ্রাপ্ত সচিব হয়েছে, কিন্তু আমাদের নাম নেই।

এখন যাদের সচিব করা হচ্ছে মেধাতালিকায় আমরা তাদের একশ’ জনের আগে অবস্থান করছি। কিন্তু আমরা তিমিরেই পড়ে আছি।’ তাদের ধারণা, সরকারের শীর্ষ পর্যায়কে কেউ ভুল বুঝিয়ে এমনটি করছেন। কিন্তু সরকারের শেষ বছরে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের গুরুত্বপূর্ণ সংকট শক্তহাতে মোকাবেলায় তাদের মতো কর্মকর্তাদের দায়িত্ব দেয়া উচিত বলে তাদের মত। এ বিষয়ে একজন কর্মকর্তা বলেন, কয়েক মাস আগে প্রশাসন ক্যাডার অ্যাসোসিয়েশনের বৈঠকে ত্যাগী ও যোগ্য কর্মকর্তাদের গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে লিখিত কার্যবিবরণী প্রস্তুত করা হয়। কিন্তু বাস্তবে তার প্রতিফলন ঘটছে না।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন