আজ শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ ইং, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



নদী পথে কম্পাস আপনাকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে

Published on 12 January 2018 | 7: 18 pm

:: মোঃ জিয়াউল হাসান শিবলু ::

১২ জানুয়ারী ২০১৮। বন্ধুর বাবার লাশ নিয়ে চট্টগ্রাম থেকে সন্দ্বীপের উদ্দেশ্যে রওনা হলাম। অলংকার থেকে এ কে খান পার হতেই দেখলাম প্রচন্ড কুয়াশা। মোবাইলে কম্পাস ইনস্টল করলাম।কুমিরা ঘাটে গিয়ে শুনলাম স্পিড বোড চালানো যাবেনা নদীতে কুয়াশার জন্য স্পিড বোড চালাতে চালকদের সমস্যা হচ্ছে।

বাস্তবতা হলো ২০ হাত দুরে কিছু দেখা যায় না। একজন প্রস্তাব করলো লাশ নিয়ে লাল বোটে চলে যান। যে মাত্র বলা সাথে সাথে উঠে বসলাম লাল বোটে। কিছুদুর যেতেই দেখলাম আমাদের বোটের ৩০ মিনিট আগে ছেড়ে আসা মালের বোটগুলো নোঙ্গর করে দাঁড়িয়ে আছে। আরো সামনে গিয়ে দেখলাম সার্ভিস বোট ঘুড়ে চট্রগ্রামে দিকে রওনা হয়েছে।

আমাদের মাঝি সার্ভিস বোটের কোন একজনকে ফোন করে জিঙ্গাস করলো কোন দিকে যাচ্ছেন ? বললো সন্দ্বীপ যাচ্ছে। আমাদের মাঝি বললো লাল বোট যে দিকে যায় সে দিকে চলেন তারাও আমাদের একই দিকে রওনা হলো কিছুক্ষন পর আর সার্ভিস বোট দেখতে পেলাম না। আমাদের মাঝিও আর দিক ঠিক রাখতে পারলো না। বললো, কোন দিকে যাচ্ছি বলতে পারছি না।

তারাতারি মোবাইল বের করে গুগোলে গুপ্তছড়া ঘাট লিখে চার্স দিলাম। দিক নির্দেশনা দিলো মাঝিকে দেখালাম, তিনি আবার দিক ঠিক করলো। দুর্ভাগাদের যা হয়। কিছু দুর যেতেই মোবাইলের নেট ছেড়ে দিলো। এবার আবার কম্পাস চালু করে মাঝিদের সামনে রাখলাম। পশ্চিম দিক দেখিয়ে দিয়ে বললাম, W লিখা যে দিকে আছে সে দিকে বোট চালান সন্দ্বীপ খুজে পাবেন। প্রায় এক ঘন্টা পর সন্দ্বীপ খুজে পেলাম কিন্তু সেটা হলো মাইটভাঙ্গা ঘাট। পরে আরো আধা ঘন্টা পর পেলাম সে কাংক্ষিত গুপ্তছড়া ঘাট।
(বিঃদ্রঃ সবাই সবার এন্ড্রুয়েড মোবাইলে কম্পাস ইনস্টল করে রাখুন নদী পথে কম্পাস আপনাকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে)


Advertisement

আরও পড়ুন