আজ মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ ইং, ০৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



‘প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতি প্রবৃদ্ধির ভাবনা আমি জানি’

Published on 04 January 2018 | 3: 27 am

দীর্ঘদিন সরকারি চাকরি থাকায় সরকারের নীতি সম্পর্কে সবচেয়ে অবহিত আছি উল্লেখ করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) নতুন চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী অর্থনীতি প্রবৃদ্ধি নিয়ে কী ভাবছেন সেগুলো আমার জানা আছে, সে অনুযায়ী কাজ করব।

বুধবার চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের পর অনুভূতি ব্যক্ত করার সময় এ কথা বলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার থেকে অফিস শুরু করব জানিয়ে মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য অভ্যন্তরীণ সম্পদ আহরণ গুরুত্বপূর্ণ। গত কয়েক বছর রাজস্ব আদায়ের প্রবৃদ্ধি হচ্ছে। এটি ধরে রাখতে এবং নতুন নতুন বিনিয়োগকে উৎসাহিত করতে কাজ করব।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াকে ২ বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়ে বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে আদেশ জারি করা হয়।

মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বিসিএস ১৯৮১ ব্যাচের অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস ক্যাডারের একজন কর্মকর্তা। ১৯৮১ সালের ৩০ জানুয়ারি সহকারী কন্ট্রোলার পদে চাকরি জীবন শুরু করেন। চাকরি জীবনের দক্ষতার সঙ্গে সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে কাজ করেছেন।

শুরুতে প্রতিরক্ষা অর্থ বিভাগ এবং হিসাব মহা-নিয়ন্ত্রকের অধীন বিভিন্ন অফিসে কাজ করেছেন। এ ছাড়া বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক এবং বাণিজ্য, শিক্ষা, স্থানীয় সরকার ও অর্থ মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব, যুগ্ম সচিব ও অতিরিক্ত সচিব পদে কাজ করেছেন।

২০১০ সালের ২৭ জানুয়ারি সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের (তৎকালীন যোগাযোগ মন্ত্রণালয়) সেতু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব পদে নিয়োগ পান।

২০১০ সালের ২৯ জুলাই তাকে সচিব পদে পদোন্নতি দেয়া হয়। সেতু সচিব থাকাকালীন তার বিরুদ্ধে পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। এ কারণে বিশ্বব্যাংকের পক্ষ থেকে পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন বন্ধ করে দেয়। অভিযোগ ওঠার পর তাকে সেতু বিভাগের সচিবের পদ দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। তাকে বসানো হয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যানের পদে।

এরপর বিশ্বব্যাংকের শর্ত মেনে সেখান থেকে তাকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছিল। ছুটিতে থাকা অবস্থায় অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যানের পদ থেকেও তাকে অপসারণ করা হয়।

এ সময় তাকে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওএসডি) করা হয়। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় গ্রেফতার হওয়ায় ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। যদিও পরে মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি কোনো অভিযোগই প্রমাণিত হয়নি। এ জন্য সরকার তাকে সসম্মানে পুনরায় চাকরিতে ফিরিয়ে আনে।

এরপর ২০১৪ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি তাকে প্রাইভেটাইজেশন কমিশনের সদস্য হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। ওই বছরের ২৬ অক্টোবর শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব পদে যোগদান করেন। ২০১৬ সালের ১১ এপ্রিল সিনিয়র সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। গত বছরের ৩০ জুন তার অবসরোত্তর ছুটিতে (পিআরএল) যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সরকার তার পিআরএল বাতিল করে এক বছরের চুক্তিতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব নিয়োগ দেয়।

মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া ১৯৫৭ সালের ১ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন। তার গ্রামের বাড়ি নরসিংদী জেলার সদর উপজেলার বালুসাইর গ্রামে। তার বাবার নাম মোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়া, মাতার নাম মমতাজ বেগম। স্ত্রীর নাম মাহফুজা বেগম। ব্যক্তিজীবনে এক ছেলে ও ২ কন্যার জনক। শিক্ষাজীবনে অর্থনীতিতে বিএসএস ও এমএসএস ডিগ্রির অধিকারী। এ ছাড়া তিনি দেশ-বিদেশে নানা প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেছেন।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন