আজ বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮ ইং, ১২ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



যশোরে প্রধানমন্ত্রী, বিকালে সমাবেশ

Published on 31 December 2017 | 7: 03 am

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার যশোর সফরে গেছেন। সকালে তিনি যশোরে বিমানবাহিনীর শিক্ষা সমাপনীর কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেছেন। বিকালে শহরের ঈদগাহ মাঠে এক জনসভায় ভাষণ দেবেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর আগমনে গোটা শহর উৎসবের নগরীতে পরিণত হয়েছে। পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে শহর পর্যন্ত মোড়ে মোড়ে ব্যানার-ফেস্টুন আর তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে।

বিকালে শহরের ঈদগাহ মাঠে জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সমাবেশে প্রায় চার লাখ লোক সমাগমের টার্গেট নিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগ। জনসভা ঘিরে চার স্তরের নিরাপত্তা গ্রহণ করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে যশোরে বেশ কয়েকটি দাবি আলোচিত হচ্ছে। এসবের মধ্যে রয়েছে যশোর সিটি কর্পোরেশন, বৃহত্তর যশোরকে বিভাগ, সাগরদাঁড়িতে মাইকেল মধুসূদন সংস্কৃতি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন।

যশোর জেলা জজকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম বলেন, যশোর এই উপমহাদেশের প্রথম জেলা। বাংলাদেশের প্রথম স্বাধীন জেলা। অথচ এখানকার মানুষের প্রত্যাশা কখনও পূরণ হয়নি। যশোরকে অবশ্যই বিভাগ করা উচিত। তিনি বলেন, যশোরকে সিটি কর্পোরেশনের ঘোষণা সময়ের দাবি।

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা রাইটস যশোরের নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিক বলেন, আমরা চাই প্রধানমন্ত্রী যশোরকে বিভাগ ঘোষণা করুক।

যশোরে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের চাওয়া। খুলনা-কলকাতা রেল চালু হলেও যশোরে এখনও স্টেশন ঘোষণা হয়নি।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক সুকুমার দাস বলেন, আমরা দীর্ঘদিন আন্দোলন করছি বাংলা সাহিত্যের মহাকবি মাইকেল মধুসূদনের জন্মস্থান কেশবপুরের সাগরদাঁড়িতে একটি পূর্ণাঙ্গ সাংস্কৃতিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য।

এ ছাড়া সংস্কৃতিচর্চায় সারা দেশের মধ্যে যশোর অন্যতম জেলা হওয়া সত্ত্বেও এখানে একটি ভালো অডিটোরিয়াম নেই। এসব আমাদের প্রাণের দাবি।


Advertisement

আরও পড়ুন