আজ শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮ ইং, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



চট্টগ্রাম সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৮৪ ব্যচের দিনব্যাপি মিলনমেলা অনুষ্ঠিত

Published on 23 December 2017 | 9: 09 am


আবু মুহাম্মদ : গত  ২২ ডিসেম্বার শৃক্রবার চট্টগ্রাম সরকারী উচ্চবিদ্যালয়ের ৮৪ ব্যচের দিনব্যাপি এক পুর্মিলনী তথা মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়।উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সরকারী উচ্চবিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র বিচারপতি হাবিবুল গনি।বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন স্কুলের শ্রদ্ধেয় শিক্ষক বৃন্দ সর্ব জনাব মোস্তফা স্যার ,আফসার আলী স্যার,ওয়াহিদ স্যার,অজিত স্যার,পোদ্দার স্যার এবং মহিউদ্দিন স্যার। অনুষ্ঠান সকাল ৮ টায় শুরু হয় স্মৃতিজড়ানো স্কুল ক্যাম্পাসে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে। অতপর সকল বন্ধুরা অনুষ্ঠানস্থল চিটাগাং বোট ক্লাবে একত্রিত হয় পরিবারসহ এবং প্রাতরাশ সম্পন্ন করে। মিনহাজ উদ্দিনের কোরান থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়। স্বাগত বক্তব্য রাখে রিইউনিয়ন কমিটির আহবায়ক ৮৪ ব্যাচের বন্ধু  রফিক।এর পর বাচ্চাদের এবং মহিলাদের খেলাধুলার ইভেন্ট সম্পন্ন হয়।মাঝখানে জুমার নামাজের বিরতির পর লান্চের ব্যাবস্থা করা হয় । লান্চ শেষে রিভার ক্রুজের ব্যাবস্থা করা হয়। সপরিবারে সকল বন্ধুরা ওয়েষ্টার্ন মেরিনের শীপে করে কর্নফুলি নদীতে  সাগরের মোহনা পর্যন্ত মনোমুগ্ধকর নৌভ্রমন উপভোগ করে।নৌভ্রমনের মধ্যে ম্যজিক প্রদর্শন বাচ্চাদের যথেষ্ট আনন্দ প্রদান করে।

নৌভ্রমনের পর শুরু হয় দীর্ঘ ৩৩ বছর পর দেখা হওয়া বন্ধুদের মাঝে বৈকালীন আড্ডা। এরপর মাগরী্বর নামাজের বিরতির পর পুরষ্কার বিতরনী এবং শিক্ষকদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয় ।শ্রদ্ধেয় শিক্ষকদের সম্মাননা এবং উপহার প্রদান করা হয়। এর পর শুরু হয়  স্মৃতিচারনমূলক বক্তব্য প্রদান । দীর্ঘ তেত্রিশ বছর আগের স্মৃতিচারন করতে গিয়ে ছাত্র শিক্ষক উভয়ে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন।স্স্মৃতিচারন করেন শিক্ষকদের মধ্যে মোস্তফা স্যার এবং ওয়াহিদ স্যার এবং বন্ধুদের মধ্যে আফজাল,একরাম,রিদোয়ান ,নাজিম এবং মিনহাজ উদ্দিন। শেষে শুরু হয় জমকালো  সংগীতানুষ্ঠান।বন্ধু রুপতনু ও হিল্লোলের নির্দশনায় এবং প্রত্যক্ষ অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত সংগীত পর্বটি সকলকে মুগ্ধ করে।বহুদিনপর সকল বন্ধুদের মিলনমেলায় আনন্দেআপ্লুত হয়ে গানের তালেতালে অনেকে নাচতে থাকে সেই ছেলেবেলার মত। সংগীতানুষ্ঠানের পর অনুষ্ঠিত হয় র‌্যাফেল ড্র,বাচ্চাদের মাধ্যমে র‌্যফেলড্রতে দশজন ভাগ্যবানকে বেছে নিয়ে পুরষ্কৃত করা হয়।নৈশভোজের পর  সকল বন্ধুদের ক্রেস্ট  ও উপহার প্রদানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।সকল বন্ধুদের নামঠিকানা ও ছবিসম্বলিত একটি মিনি স্যুভেনির প্রকাশ করা হয়। পুরো অনুষ্নঠানটি  যে সকল বন্ধুরা অক্লান্ত পরিশ্রমের মাধ্যমে সাফল্যমন্ডিত করে তাদের মধ্যে রফিক, ফাহিম,তমাল ,শহিদের নাম উল্লেখযোগ্য। দেশের বাইরে থেকে যারা অনুষ্ঠানে উল্লেখযোগ্য সহযোগীতা করে তাদের মধ্যে জাকির ,মিনহাজুর রহমান,রাফি,সাহেদ এর নাম উল্লেখযোগ্য।অনুষ্ঠানে বাইরে থেকে যারা সহযোগীতা করেছে তাদের মধ্যে চট্টগ্রাম কলেজের ৮৬ ব্যাচের জহির,সফি ও সাহির অন্যতম।

 

 


Advertisement

আরও পড়ুন