আজ বৃহঃপতিবার, ১৬ আগষ্ট ২০১৮ ইং, ০১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



জান্নাতুল বাক্বী

Published on 01 August 2017 | 5: 40 am

মুহম্মদ হুমায়ুন কবির ছিদ্দিকী ::


জান্নাতুল বাক্বী মদীনা মুনাওয়ারায় অবস্থিত পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম কবরস্থান। মসজিদে নববীর ঠিকপূর্ব দিকে প্রাচীর ঘেরা সমতল কবরস্থানটি বিখ্যাত জান্নাতুল বাক্বী নামে পরিচিত। কেউ কেউ একে ‘বাক্বী’ কবরস্থান বলে সম্বোধন করেন।
রাসূল (সাঃ) এর স্ত্রী ছিলেন ১১/১৩ জন। ইসলাম প্রচার ও উম্মতের বৃহত্তর প্রয়োজনে তিনি এসব বিয়ে করেন। তাঁদের মধ্যে দু’জন খাদিজা বিনতে খুয়াইলিদ (রাঃ) ও জয়নব বিনতে খুজাইমা (রাঃ) মহানবী (সাঃ) এর জীবদ্দশায় ইন্তেকাল করেন। বাকিরা সবাই নবীজি (সাঃ) এর দুনিয়া ত্যাগের পর মারা যান। উম্মুল মু’মিনীন হযরত আয়েশা সিদ্দিকা (রাঃ) সহ রাসূল (সাঃ) এর আরো আটজন স্ত্রী এই জান্নাতুল বাক্বীর পবিত্র ভূমিতে ঘুমিয়ে আছেন। এছাড়াও এই পুণ্য ভূমিতে ঘুমিয়ে আছেন ইসলামের তৃতীয় খলিফা আমীরুল মু’মিনীন হযরত উসমান ইবনে আফ্ফান (রাঃ), রাসূল (সাঃ) এর দুধ মা হযরত হালীমাতুস সা’দিয়া (রাঃ), রাসূল (সাঃ) এর কলিজার টুকরা খাতুনে জান্নাত হযরত ফাতেমাতুজ জাহরা (রাঃ) সহ রাসূল (সাঃ) এর অপর তিন কন্যা হযরত জয়নাব (রাঃ), হযরত উম্মে কুলছুম (রাঃ) ও হযরত রুকাইয়্যা (রাঃ) ও প্রিয় নবীজির (সাঃ) ছোট্ট পুত্র হযরত ইবরাহীম (রাঃ)। রাসূল (সাঃ) এর চাচা হযরত আব্বাস (রাঃ) সহ তিন ফুফু আত্বিকা, সাফিয়া এবং উম্মে হানী। রাসূল (সাঃ) এর প্রাণাধিক প্রিয় নাতি ইমাম হাসান মুজতাবা (রাঃ), প্রপৌত্র ইমাম যাইনুল আবেদীন, ইমাম জা’ফর সাদিক, ইমাম মোহাম্মদ বাকের ও ইসলামের চতুর্থ খলিফা আমীরুল মু’মিনীন হযরত আলী (রাঃ) এর আম্মা ফাতেমা বিনতে আসাদ ও ভাই হযরত আকিল ইবনে আবু তালেব (রাঃ) এবং হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে জা’ফর তাইয়্যার।
প্রখ্যাত হাদীস বিশারদ হযরত আবু সাঈদ খুদরী (রাঃ), হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাঃ), হযরত আব্দুর রহমান ইবনে আ’উফ (রাঃ), হযরত সা’দ ইবনে ওয়াক্কাস (রাঃ), হযরত উসমান ইবনে মাজ’উন/মু’য়াজ (রাঃ), হযরত খুনাইস ইবনে হুজাফা (রাঃ), হযরত আসাদ ইবনে যুরারাহ (রাঃ) হযরত সা’দ ইবনে মু’য়াজ (রাঃ) প্রমুখ সাহাবীগণও এখানে সমাহিত আছেন। শুহাদায়ে উহুদ থেকে সেই সকল সাহাবাগণের কবরও এখানে বিদ্যমান, যারা উহুদের যুদ্ধে আহত হয়ে মদিনায় এসে শাহাদাত বরণ করেছিলেন। এছাড়াও আরো প্রায় ১০ হাজারেরও বেশী সাহাবায়ে কেরাম (রাঃ) এর কবর এই পুণ্যভূমিতে বিদ্যমান।
এখানে আরো সমাহিত আছেন শায়খুল ক্বোররা হযরত ইমাম নাফে’ (রহঃ), হযরত ইমাম মালেক (রহঃ) এবং ইসমাঈল ইবনে ইমাম সাদেক (রহঃ)। এছাড়াও শতশত শহীদ, তাবে’য়ীন, তাবে-তাবে’য়ীন, ছিদ্দিকীন ও ছালেহীনদের কবরও এখানে রয়েছে।
জান্নাতুল বাক্বীর একপাশে এখনো প্রতিদিন নতুন নতুন কবর হচ্ছে। এখানে একটি ও দু’টি পাথর খন্ড দিয়ে একেকটি কবর চিহ্নিত করা আছে। এই কবরস্থানটি প্রতিদিন ফজর এবং আছরের নামাজের পর দর্শনার্থী/জিয়ারতকারীদের জন্য খুলে দেয়া হয়। এক-দেড় ঘন্টা পর এটি আবার বন্ধ করে দেয়া হয়। উল্লেখ্য যে, একটি পাথর খন্ড দ্বারা চিহ্নিত কবরগুলো পুরুষের ও দু’টি পাথর খন্ড দ্বারা চিহ্নিত কবরগুলো মহিলাদের।
জান্নাতুল বাক্বীতে গিয়ে সেখানকার কবর বাসীদের জন্য আমাদের প্রিয় রাসূল (সাঃ) আকুল চিত্তে প্রাণভরে দোয়া করতেন। রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- “কেয়ামতের দিন জান্নাতুল বাক্বী হতে ৭০ হাজার লোক উঠবেন, যাঁদের চেহারা হবে পূর্ণিমার চাঁদের মত এবং তাঁরা বিনা হিসাবে বেহেস্তে গমন করবেন” সুবহান আল্লাহ! প্রিয় পাঠক, এখন বুঝতেই পারছেন জান্নাতুল বাক্বী কত পবিত্র ও পুণ্যময় স্থান।
অতএব মদিনায় অবস্থান কালে প্রতিদিন ফজর ও আছরের নামাজের পর আপনি জান্নাতুল বাক্বী জিয়ারত ও দোয়া করতে পারেন। কারণ রাসূল (সাঃ) এরশাদ করেন- “আমি তোমাদেরকে কবর জিয়ারত করতে নিষেধ করেছিলাম। তবে এখন থেকে তোমরা কবর জিয়ারত কর। কেননা তা মৃত্যুর কথা স্মরণ করিয়ে দেয়।” (মুসনাদে আহমাদ, হা/২৩০০৫)
রাসূল (সাঃ) ‘বাক্বীউল গারকাদ’ কবরস্থান জিয়ারতের সময় বলতেন- “হে কবরবাসী মুমিন সম্প্রদায়! তোমাদের উপর শান্তি বর্ষিত হোক। পরকালে নির্ধারিত যেসব বিষয়ের প্রতিশ্রুতি তোমাদেরকে দেওয়া হয়েছিল, সেগুলির কিছু অংশ ইতিমধ্যে তোমাদের নিকট এসে গেছে। (আর) আমাদেরকে ক্ষণিকের অবকাশ দেওয়া হয়েছে মাত্র। নিশ্চয়ই আমরা তোমাদের সাথে মিলিত হব ইনশাআল্লাহ। হে আল্লাহ! তুমি বাক্বীউল গারকাদ কবরবাসীকে ক্ষমা করে দাও” (সহীহ মুসলিম, হা/১০২)।
আমরা প্রত্যেকে পুণ্যময় এই কবরস্থানটি জিয়ারত ও পবিত্র হজ্জব্রত পালন করার চেষ্টা করব, ইন্শাআল্লাহ! মহান আল্লাহ তা’য়ালা আমাদের প্রত্যেককে রাসূল (সাঃ) এর পদচারণায় পুণ্যভূমি মক্কা-মদিনা জিয়ারত করার তৌফিক দান করুন। আমীন!
বি.দ্রঃ প্রসিদ্ধ সাহাবী হযরত বেলাল হাফসী (রাঃ) এর কবর দামেশকে, হযরত মু’আয ইবনে জাবাল (রাঃ) এর কবর জর্ডানে, হযরত আব্দুর রহমান (রাঃ) এর কবর উত্তর আফ্রিকায়, হযরত আবু আইউব আনসারী (রাঃ) এর কবর ইস্তাম্বুলে, হযরত খালিদ ইবনে ওয়ালিদ (রাঃ) এর কবর হিমসে, হযরত আবুদ্দারদা (রাঃ) এর কবর জর্ডানে, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে রওয়াহা (রাঃ) এর কবর জর্ডানে ও হযরত জা’ফর ইবনে আবু তালেব (রাঃ) এর কবর মোতায় অবস্থিত।

kabir


লেখক : একজন মাওলানা, সন্দ্বীপের সন্তান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান- রাজধানীর উত্তরায়, বসবাস- টঙ্গী ।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন