আজ রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ইং, ১০ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সন্ধ্যার পর ভুয়া সাংবাদিকদের ওসিদের রুমে পাওয়া যায়: পিআইবি প্রধান

Published on 06 April 2017 | 3: 06 pm

 
সোনালী নিউজ ডেস্ক ::

 

ভুয়া সাংবাদিকদের রুখতে না পারলে সাংবাদিকতার মর্যাদা ঝুঁকির মধ্যে পড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) মহাপরিচালক মো. শাহ আলমগীর।
 
বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে ‘সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ’ কর্মশালার শেষ দিনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এ আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।
 
মো. শাহ আলমগীর বলেন, সাংবাদিকতার নামে অপসাংবাদিকতা যেখানেই ঘটুক না কেন, একজন নিবেদিতপ্রাণ সংবাদকর্মী আহত হন। ভুয়া সাংবাদিকদের কারণে আসল সাংবাদিকরা বিব্রত হন।
 
সাংবাদিকতাকে অগ্রবর্তী মানুষদের পেশা অভিহিত করে পিআইবির এই শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, “সাংবাদিককে প্রতি মুহূর্তে শিখতে হয়, জানতে হয়। আর তারা যা জানাবে তাই মানুষ দেখবে, শুনবে।
 
“তাই এটি অগ্রবর্তী মানুষদের পেশা। যদি সাংবাদিকতা মূর্খ মানুষদের হাতে পড়ে তাহলে এটিকে অগ্রবর্তী মানুষদের পেশা বলার সুযোগ থাকে না। ভুয়া সাংবাদিকদের রুখতে না পারলে এ পেশার মর্যাদা ঝুঁকির মধ্যে পড়বে।”
 
ভুয়া সাংবাদিকদের দাপট প্রকৃত সাংবাদিকদের চেয়ে বেশি জানিয়ে তিনি বলেন, “সন্ধ্যার পর এসব ভুয়া সাংবাদিকদের ওসিদের রুমে পাওয়া যায়। আবার মন্ত্রীদের কোনো প্রেস কনফারেন্সে এরা সামনের সারি দখল করে বসে থাকে।”
 
এদের হাত থেকে সাংবাদিকতাকে রক্ষায় সাংবাদিক সংগঠন ও সাংবাদিক নেতাদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান শাহ আলমগীর।
 
পেশার মর্যাদার রক্ষা করতে না পারলে মানুষের মধ্যে সংবাদের বিশ্বাসযোগ্যতা থাকবে না বলে জানান তিনি।
 
নিজের রাজনৈতিক বিশ্বাস যাতে সংবাদ তৈরিতে না পড়ে সেদিকে সতর্ক থাকারও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।
 
কর্ণফুলি টানেল, বে টার্মিনাল, কক্সবাজারের মাতারবাড়ি প্রকল্প, মিরসরাই অর্থনৈতিক জোন- এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে চট্টগ্রামের গুরুত্ব বেড়ে যাবে জানিয়ে শাহ আলমগীর বলেন, চট্টগ্রাম খবরের অনেক বড় একটা উৎস হয়ে উঠবে ভবিষ্যতে।
 
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।
 
তিনি বলেন, “সংবাদপত্র যেমন বেড়েছে, তেমনি সংবাদকর্মীদের সংখ্যাও বেড়েছে। সাংবাদিকদের বুনিয়াদ শক্ত না হলে সুফল পাওয়া যাবে না।”
 
কর্মশালায় অংশ নেওয়া সাংবাদিকরা সত্যকে জানতে ও জানাতে ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন অধ্যাপক ইফতেখার।
 
শেষ দিনে কর্মশালা শেষে সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সাধারণ সম্পাদক মো. আলী।
 
অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহ-সভাপতি শহিদ উল আলম, সিইউজের সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, বিএফইউজের যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী ও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি কাজী আবুল মনসুর বক্তব্য রাখেন।
ছবি : বাংলা নিউজ টুয়েন্টি ফোরের সৌজন্যে


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন