আজ সোমবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৮ ইং, ১০ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সন্দ্বীপে দেশী মোটর বাইক জনপ্রিয়তা পাচ্ছে না

Published on 04 November 2015 | 1: 58 pm

সাইফুল ইসলাম ইনসাফ ঃ দেশীয় পণ্য কিনে হও ধন্য-এ শ্লোগানটি আমাদের দেশে কখনো খুব বেশী জনপ্রিয়তা পেয়েছে বলে মনে হয়নি। দেশে উৎপাদিত বিভিন্ন  পণ্যের গণমাধ্যমে দেয়া বিজ্ঞাপন সাধারণ মানুষকে যেমন আকৃষ্ট করছে না তেমনি মোটর বাইকের ক্ষেত্রেও একই পরিণতি দেখা যায়। সন্দ্বীপের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বাহন হচ্ছে মোটর বাইক। নি¤œবিত্ত মধ্যবিত্তের জনপ্রিয় বাহন এটি। দৈনন্দিন ব্যবসায়িক প্রয়োজনে যেমন এটি ব্যবহার হয় তেমনি পারিবারিক প্রয়োজনে ও এটি অত্যাবশ্যকীয়। বিভিন্ন দেশী বিদেশী কোম্পানীর বাংলাদেশে উৎপাদিত অন্তত চার ব্র্যান্ডের মোটর সাইকেল রয়েছে।

ওয়ালটন, মাহিন্দ্র, যমুনা, ডায়াং রানার এর মধ্যে সন্দ্বীপে ওয়ালটন মোটর বাইকের শো রুম রয়েছে। ধারনা করা হয় সন্দ্বীপের সড়ক গুলোতে সহ¯্রাধিক বাইক চলছে। এর মধ্যে গুটি কয়েক ওয়ালটন ব্র্যান্ডের।  এক সময় সন্দ্বীপে জাপানের তৈরি হোন্ডা ,ইয়ামাহা,সুজুকী ব্র্যান্ডের বিভিন্ন মডেল ও সিসির মোটর বাইক ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। বিশেষ করে হোন্ডা সিডিআই স্মার্ট পুরুষের জনপ্রিয় মোটর সাইকেলের পরিণত হয়। জাপানী বাইক আমদানী বদ্ধ হলে ভারতের তৈরি হিরো হোন্ডা সন্দ্বীপে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। পরে কমদামে অধিক সুবিধা সম্বলিত চায়নার তৈরি মোটর বাইক সহজলভ্য হলে মধ্যবিত্তের অনেকে চায়না গাড়ি কেনা শুরু করে। বিগত এক দশক ধরে ভারতীয় কোম্পানী বাজাজের ডিসকভার মডেলের গাড়ি তরুণ প্রজন্মের ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেলে অন্য গাড়ির সংখ্যাকে ছাড়িয়ে যায়।

বাজাজের বক্সার,সিটি হান্ডেড,পালসার সহ অন্যান্য গাড়ি সীমিত পর্যায়ে সন্দ্বীপের রাস্তায় চলতে দেখা যায়। গত কয়েক বছর ধরে চোরাচালানীরা সীমান্ত পথে ভারত হতে অবৈধ পথে মোটর বাইক আমদানী শুরু করে । ফলে ভারত হতে বৈধ পথে আনা গাড়ির তুলনায় এসব গাড়ির স্থানীয় মূল্য হ্রাস পায়। কম দামে পাওয়া এসব গাড়ি স্থানীয় ভাবে টানা গাড়ি নামে পরিচিত। অনুমোদন ও রেজিস্ট্রেশন বিহীন এসব গাড়ি মৌখিক স্বাক্ষীতে বিকিকিনি চলে। ভারতীয় গাড়ির সহজলভ্যতায় দেশী গাড়ির ক্বদর আরো কমে যায় বলে বিশেষজ্ঞগণের ধারনা।

অপর পক্ষে বৈধ অবৈধ সব বাজাজ গাড়ির সন্দ্বীপে বার্ষিক ফ্রি সার্ভিসিং এর ব্যবস্থা থাকায় বাজাজের গাড়ির জনপ্রিয়তা হ্রাস পাচ্ছে না। খুচরা যন্ত্রাংশ ও এখানে পর্যাপ্ত রয়েছে। ভারতীয় গাড়ি গুলোর সাথে পাল্লা দিয়ে দেশে তৈরি মোটর বাইক গুলো মজবুত ও আধুনিক সুবিধা সম্বলিত হওয়া সত্ত্বেও দেশী মোটর বাইকের প্রতি অবহেলা ছাড়ার মাধ্যমে সকলকে দেশপ্রেমের পরিচয় দিতে হবে।


Advertisement

আরও পড়ুন