আজ শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ ইং, ০৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



আমার ভাবনায় ‘সোনালী সন্দ্বীপ’

Published on 27 December 2016 | 7: 07 am

:: আকতারুজ্জামান মোহাম্মদ মোহসীন ::
সোনালী সন্দ্বীপ’কে নিয়ে কী লিখা যায় ? অনেক ভেবেছি, যে পরিকল্পনা করে ভাবতে যাই, তার অল্প কিছুক্ষণ পরেই সব হারিয়ে যায় । এত কিছু লিখতে ইচ্ছা করছে যে, যা কোন ভাবেই লিখা সম্ভব নয় । সেই ১৯৯৯ সালে জম্ম নেয়া সোনালী সন্দ্বীপ পা পা করে ১৮’তে পা দেয়া আজ ভরা যৌবনে আসীন । এমন সময় সোনালী সন্দ্বীপ’কে শুভেচ্ছা না জানালে কি হয় ? এমন শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন না জানানো কৃপনতার সামিল । তাই যৌবনের সোনালী সন্দ্বীপ’কে প্রাণ ঢালা শুভেচ্ছা ও আন্তরিক অভিনন্দন । অভিনন্দন সোনালী সন্দ্বীপ’কে যারা কোলে পিঠে করে সোনালী সন্দ্বীপ’কে এখানে নিয়ে এসেছেন। শুভেচ্ছা রইল তাদের সবাইকে, যাদের নিরলস প্রচেষ্টায় সোনালী সন্দ্বীপ আজ এখানে এসেছে। অভিনন্দন সোনালী সন্দ্বীপ’র সকল শুভানুধায়ী, পৃষ্টপোষক, বিজ্ঞাপনদাতা, পাঠক, সংবাদদাতা, নিয়মিত এবং অনিয়মিত লেখক-লেখিকাদের । সে সুযোগে সকল সন্দ্বীপবাসীকে আমার সশ্রদ্ধ সালাম, শুভেচ্ছা ও  অভিনন্দন ।

কিছু অর্জনের কোন সীমারেখা নেই বলে হয়তো পরিমাপ করা যাবে না, সোনালী সন্দ্বীপ এতদিনে কতটা অর্জন করতে পেরেছে। কিন্তু এটা নিশ্চিত করে বলা যাবে যে, সোনালী সন্দ্বীপ অনেকটা পথ হেঁটে এখানে এসেছে। এ দীর্ঘ পথ চলায় সোনালী সন্দ্বীপ কত কিছু দেখেছে, জেনেছে, বাঁধা পেরিয়ে কত প্রতিকুলতা অতিক্রম করেছে, তার কোন হিসাব আছে ? এর হিসাব করতে গেলেই দেখা যাবে তার অর্জনের বিশাল পাহাড় তৈরী হয়ে গেছে। তা হয়তো হিমালয় শৃঙ্গকে ছাড়িয়ে যাবে। বিশালতায় সোনালী সন্দ্বীপ যে বঙ্গোপসাগরকে ছাপিয়ে যাবেনা তাও বলা যায় না। সোনালী সন্দ্বীপ যৌবনে পা দিয়ে মাথা উঁচু কওে সন্দ্বীপের মূখপাত্র হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। সোনালী সন্দ্বীপ প্রতিবন্ধকতার রাস্তা পেরিয়ে, প্রতিকুল আবহাওয়াকে উপেক্ষা করে, রাস্তা রাস্তা হেঁটে খবর সংগ্রহ করা থেকে শুরু করে দীর্ঘদিন ধওে আপামর মানুষের কাছে নিজেকে পৌঁছে দেয়ার দায়িত্ব পালন করে আসছে। যার কোন তুলনা হয় না।

সোনালী সন্দ্বীপ মানেই এক বিশাল কর্মযজ্ঞ। সোনালী সন্দ্বীপ মানেই অনেক বড় দায়িত্ববোধ। সোনালী সন্দ্বীপ মানেই নি:স্বার্থ কিছু নিবেদিত প্রানের মানুষ। সোনালী সন্দ্বীপ মানে সততা ও নিষ্ঠার দায়ভার। সোনালী সন্দ্বীপ মানে সন্দ্বীপের মানুষের খবরা খবর সারা বিশ্বে পৌঁছে দেয়ার নির্মল প্রত্যয়। এত কিছু মাথায় নিয়ে সোনালী সন্দ্বীপ’কে আজকের অবস্থানে আনা খুব সহজ কাজ নয়। কিন্তু মানুষের আন্তরিক প্রচেষ্টায় এমন কঠিন কাজটিকেও অবলীলায় সহজ করে দিয়েছে। ভাবলে অবাক লাগে, সোনালী সন্দ্বীপ আজ কোথায় এসে দাঁড়িয়েছে। এতটা পথ যে সোনালী সন্দ্বীপ অতিক্রম করে এসেছে, নিশ্চিত করে বলতে পারি তার সারা পৃথিবীকে জানান দেয়ার সময় খুব বেশী দুরে নয়। আশীর্বাদ রইল সোনালী সন্দ্বীপ ছড়িয়ে যাক সারা বিশ্বময়। সোনালী সন্দ্বীপ অবহেলিত জনপদের নিত্য সঙ্গী হয়ে থাকুক আদি অনন্তকাল ধরে। উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাক সোনালী সন্দ্বীপ’র শক্তি, সামর্থ, মেধা, মনন ও প্রজ্ঞা। এগিয়ে যাক সুন্দর উন্নত আগামীর পথে। সন্দ্বীপের অন্ধকারে হউক আলোর দিশারী। নিজের আলোয় আলোকিত করুক সমগ্র সন্দ্বীপ।

সন্দ্বীপ বাংলাদেশের বিচ্ছিন্ন একটি ভূখন্ড। বলা যায় পরিবেশ আর পরিস্থিতির কারনে বাংলাদেশের একটি পিছিয়ে পরা জনপদও। রাজনীতি থেকে শুরু করে প্রশাসন, সর্বক্ষেত্রে চিরকালই অবহেলিত ছিল এই সন্দ্বীপ। তাই বলে সোনালী সন্দ্বীপ বসে থাকেনি। সোনালী সন্দ্বীপ তার দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বরাবরই সন্দ্বীপকে সব সময় তুলে ধরেছে। আধুনিকতা আর উন্নয়নের কোন ছোঁয়া এ জনপদে লাগে না। সন্দ্বীপের মানুষ চিরকাল প্রকৃতির সাথে যুদ্ধ করে বেঁচে থাকে। যেখানে সোনালী সন্দ্বীপ প্রকাশনার কোন সুযোগ পর্যন্ত নেই, সেই সন্দ্বীপের নাম বুকে ধারণ করে সোনালী সন্দ্বীপ’কে আজ এখানে নিয়ে এসেছেন ক’জন অকুতভয় সাহসী মানুষ। যাদের কোন তুলনা হয় না। একই সাথে আজ যৌবনে পা দেয়া সোনালী সন্দ্বীপ’র তুলনা কী করে হয়? সোনালী সন্দ্বীপ আজ এমন জায়গায় এসে দাঁড়িয়েছে যে, তার তুলনা কেবল সে নিজেই।

সোনালী সন্দ্বীপ বিচ্ছিন্ন জনপদ সন্দ্বীপের মূখপত্র হয়ে আমাদের হাঁসি-আনন্দ, সুখ-দু:খের সাথী হয়ে আছে দীর্ঘ পথ পরিক্রমায়। সোনালী সন্দ্বীপ এখন সন্দ্বীপের আনন্দ-বেদনার প্রতিচ্ছবিতে রুপ নিয়েছে। মানুষের কথা, জনপদের কথা, এপার-ওপার চড়ের কথা এবং গনমানুষ সবার কথা বলে । জলোচ্ছাস, ঘূর্ণিঝড়, বাঁধ ভাঙ্গা, নৌকা ডুবির আহাজারী সব সংবাদ পৌঁছে দেয় দেশের আপামর মানুষের কাছে। জানিয়ে দেয় সুদুর প্রবাসে বসবাসরত সন্দ্বীপবাসীর কাছে। সোনালী সন্দ্বীপ এখন সন্দ্বীপের গর্বে পরিনত হয়েছে। সোনালী সন্দ্বীপ এখন সন্দ্বীপের অহঙ্কার। সোনালী সন্দ্বীপ নিজেই জায়গা করে নিয়েছে প্রকাশনা জগতে। মন জয় করে নিয়েছে পাঠক সমাজে। আজকের এই দিনে সোনালী সন্দ্বীপ’র উত্তরোত্তর সাফল্য ও সমৃদ্ধি কামনা করছি।

শুভেচ্ছান্তে –

আকতারুজ্জামান মোহাম্মদ মোহসীন
পিতাঃ মরহুম মোহাম্মদ আলম চৌধুরী সওদাগর
গ্রামঃ কালাপানিয়া
ডাকঘরঃ আকবরহাট
উপজেলাঃ সন্দ্বীপ
জেলাঃ চট্টগ্রাম – ৪৩০০
মোবাইলঃ    ০১৭১৫-৯৪৩০২৯
ই-মেইলঃ akter_mohasin@yahoo.com


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন