আজ বুধবার, ২০ জুন ২০১৮ ইং, ০৬ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



প্রধানমন্ত্রীর বিমানে ত্রুটি ৯ জনকে আসামি করে মামলা

Published on 21 December 2016 | 4: 48 am

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানের যান্ত্রিক ত্রুটির ঘটনায় ৯ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে বিমানবন্দর থানায় মামলাটি রেকর্ড করা হয়।

বাংলাদেশ বিমানের পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট) এমএএম আসাদুজ্জামান বাদী হয়ে মামলাটি (মামলা নং-২৩) করেছেন বলে বিমানবন্দর থানার পরিদর্শক তদন্ত মো. এজাজ শফি যুগান্তরকে জানিয়েছেন।

মামলার সঙ্গে সঙ্গেই আসামিদের গ্রেফতারে সাঁড়াশি অভিযানে নেমে পড়েছে পুলিশ। বিমানবন্দর থানা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, বিমান পর্ষদ সদস্য ব্যারিস্টার তানজিব উল আলম, মন্ত্রণালয়ের সচিব এসএম গোলাম ফারুক, বাংলাদেশ বিমানের এমডি মোসাদ্দিক আহম্মেদ ও বিমান মন্ত্রণালয়ের আইন শাখার শীর্ষ কর্মকর্তাদের এক বৈঠকে মামলার এজাহার চূড়ান্ত করা হয়।

পুলিশ আনুষ্ঠানিকভাবে আসামিদের নাম প্রকাশ করেনি। তবে পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, ইতিমধ্যে বরখাস্ত হওয়া ৯ কর্মকর্তাকে মামলায় আসামি করা হয়েছে এবং আরও অজ্ঞাত কয়েকজনের যোগসাজশ থাকার কথা বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ নভেম্বর হাঙ্গেরি যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বোয়িং ৭৭৭ বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। এ সময় তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশখাবাদে জরুরি অবতরণ করে বিমানটি।

পরে অন্য একটি বিমান পাঠিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের হাঙ্গেরির বুদাপেস্টে পৌঁছানো হয়। পরে ত্রুটি সারিয়ে ওই উড়োজাহাজটিও হাঙ্গেরি পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় গত ২৮ নভেম্বর বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এবং বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) আলাদাভাবে কমিটি গঠন করে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গত ৩০ নভেম্বর বিমানের ইঞ্জিনিয়ারিং ও কারিগরি বিভাগের ছয় কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করার কথা জানান রাশেদ খান মেনন।

এরপর ১৪ ডিসেম্বর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের তিনজন শীর্ষ প্রকৌশলীকেও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

দুই দফায় সাময়িক বহিষ্কারপ্রাপ্তরা হলেন, বিমানের প্রধান প্রকৌশলী (প্রডাকশন) দেবেশ চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী (কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স) এসএ সিদ্দিক ও প্রিন্সিপাল ইঞ্জিনিয়ার (মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড সিস্টেম কন্ট্রোল) বিল্লাল হোসেন, প্রকৌশল কর্মকর্তা এসএম রোকনুজ্জামান, সামিউল হক, লুৎফর রহমান, মিলন চন্দ্র বিশ্বাস ও জাকির হোসাইন এবং টেকনিশিয়ান সিদ্দিকুর রহমান।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন