আজ শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮ ইং, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



রোহিঙ্গা ‘গণহত্যা’ বন্ধে হস্তক্ষেপের আহ্বান মালয়েশিয়ার

Published on 04 December 2016 | 8: 40 am

রোহিঙ্গা ‘গণহত্যা’ বন্ধে আন্তর্জাতিক হস্তক্ষেপের আহ্বান জানিয়েছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। কুয়ালালামপুরে রোববার হাজারো মুসলিম রোহিঙ্গার বিক্ষোভে অংশ নিয়ে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গণহত্যা বন্ধের এ আহ্বান জানান তিনি।

রয়টার্স অনলাইনের এক খবরে সোমবার এ তথ্য জানানো হয়েছে। রাখাইন রাজ্যে সহিংসতা ও রাষ্ট্রীয় মদদে ক্ষমতার অপব্যবহার নিয়ে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ মালয়েশিয়া ক্রমেই মিয়ানমারের বিরুদ্ধে সমালোচনামুখর হচ্ছে। অত্যাচারিত রাখাইনদের মধ্যে কয়েক হাজার সম্প্রতি সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে।

মিয়ানমারের এ অবস্থানকে ‘রোহিঙ্গা নিধন’ অভিযান বলে অভিযোগ করেছেন অনেকে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে গণমাধ্যমকে সহিংসতা উসকে দেওয়ার জন্য দায়ী করেছেন দেশটির রাষ্ট্রীয় পরামর্শক ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী নোবেলজয়ী অং সান সু চি।

মিয়ানমারের রাখাইন ইস্যুতে হস্তক্ষেপের জন্য জাতিসংঘ, আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত ও ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রাজাক। তিনি বলেন, ‘বিশ্ব চুপচাপ বসে থাকতে পারে না এবং গণহত্যা সংঘটিত হওয়া দেখতে পারে না।’

মিয়ানমার আগেই হুঁশিয়ার করেছে, সদস্যদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাগ না গলানোর যে নীতি রয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় জাতিসমূহের সংস্থার (আসিয়ান), মালয়েশিয়া তা ঝুঁকিতে ফেলছে।

এর প্রতিক্রিয়ায় রোববার রাজাক বলেন, গত বছর ঐকমত্যের ভিত্তিতে আসিয়ানকে একক সম্প্রদায় হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সেই সঙ্গে মৌলিক মানবাধিকার রক্ষার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়।

মিয়ানমারের নেত্রী সু চির সমালোচনা করে রাজাক বলেন, ‘দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় রোহিঙ্গা ইস্যুকে তিনি বাদ দেন… এটি কীভাবে হতে পারে? আমাদের সব বিষয়ে আলোচনায় আসা উচিত।’

নাজিব রাজাকের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ইউনাইটেড মালয় ন্যাশনাল অর্গানাইজেশন এবং প্যান-মালয়েশিয়ান ইসলামিক পার্টি রোববার সমাবেশের আয়োজন করে। এতে প্রায় ১০ হাজার মানুষ উপস্থিত হয়, যাদের অধিকাংশই রোহিঙ্গা।

রোহিঙ্গাদের হত্যা, নির্যাতনের দায়ে গত সপ্তাহে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে উদ্বেগ জানায় কুয়ালালামপুর। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হিসেবে দুই দেশের মধ্যে অনুষ্ঠেয় অনূর্ধ্ব-২২ ফুটবল ম্যাচ বাতিল করে মালয়েশিয়া।

মালয়েশিয়ায় রোহিঙ্গা সোসাইটির প্রেসিডেন্ট ফয়সাল ইসলাম মুহাম্মদ কাসিম সংকট সমাধানে রাজাকের প্রচেষ্টার প্রশাংসা করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা চাই, মুসলিম বিশ্ব ও পশ্চিমা বিশ্বের কাছে রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগে মালয়েশিয়া বার্তা দিক।’

২০১২ সাল থেকে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা ও অন্যদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সাম্প্রদায়িক সংঘাত চলছে। এ সংঘাতে এরই মধ্যে কয়েক শ রোহিঙ্গা মারা গেছে। অভিযোগ রয়েছে, রাষ্ট্রের সহযোগিতায় রোহিঙ্গাদের হত্যা করছে কট্টরপন্থি বৌদ্ধ সম্প্রদায় ও সেনাবাহিনী।

চার বছরের দমন-পীড়নে দেশ ছেড়ে পালিয়েছে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা। তাদের মধ্যে অনেককে মালয়েশিয়া ও থাইল্যান্ডে পাচার করা হয়েছে।

রাজাকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে। তিনি অস্বীকার করলেও তার ওপর পদত্যাগের চাপ রয়েছে। কিন্তু বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে রাজাক বলেছেন, জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত মালয়দের জন্য ও ইসলামের জন্য লড়ে যাবেন।

 

 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন