আজ সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ ইং, ০৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সন্দ্বীপের সাবেক সাংসদ দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমানের ১৪ তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রামে স্মরণ সভা, দোয়া মাহফিল ও মেজবান অনুষ্ঠিত

Published on 01 November 2015 | 4: 05 pm

sonalinews24.com (শাহাদাৎ হোসেন আশরাফ) :: গত ৩১ অক্টোবর, শনিবার চট্টগ্রামস্থ সন্দ্বীপবাসীর উদ্যোগে চট্টগ্রামের নয়াবাজারস্থ মাতৃভূমি কমিউনিটি সেন্টারে সন্দ্বীপের সাবেক সাংসদ দ্বীপবন্ধু মরহুম মুস্তাফিজুর রহমানের ১৪ তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

স্মরণ সভা কমিটির আহবায়ক ইউসুফ তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য এডভোকেট এ এম আনোয়ারুল কবির, উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এ সালাম, দ্বীপবন্ধু পুত্র সন্দ্বীপের সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা, চট্টগ্রাম চেম্বার এর পরিচালক সারওয়ার হাসান জামীল (সামীম), চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম, সন্দ্বীপ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাইন উদ্দিন মিশন, সন্দ্বীপ এসোসিয়েশন এর সভাপতি শামসুল কিবরিয়া, সন্দ্বীপ এডোকেশন সোসাইটির সভাপতি এম এ বারী। 11225296_1595308617356521_5050470817846456507_nউত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এ সালাম  মরহুম মুস্তাফিজুর রহমানের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন- জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত মুস্তাফিজ সন্দ্বীপের মানুষের উন্নয়নের কথা চিন্তা করেছেন। দু’বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে সন্দ্বীপের উন্নয়নে অনেক কাজ করেছেন মুস্তাফিজ, তারপরও তিনি মনে করতেন এখনও অনেক কাজ বাকী আর তাইতো আমাদের অনুরোধ উপেক্ষা করে তিনি অসুস্থ শরীর নিয়ে মনের অতৃপ্তিকে তৃপ্ত করার জন্য মৃত্যুর আগেও নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন। যুগে যুগে হাজার বছর ধরে বহু জ্ঞানীগুনি জন্ম দিয়েছিল সন্দ্বীপ তারই ধারবাহিকতায় মুস্তাফিজুর রহমানের জন্ম। আবেগ আপ্লুত কন্ঠে জনাব সালাম বলেন, তিনি আসলেন, দ্বীপবাসীর মন জয় করলেন এবং চলে গেলেন, অল্প সময়ে উজাড় করে দিয়ে সেবা করেছেন সন্দ্বীপের মানুষকে। প্রটোকল অনুযায়ী নীচের কর্মকর্তার কাছেও তিনি  সন্দ্বীপের দাবী দাওয়া, অভাব অভিযোগ নিয়ে যেতেন। কোন রূপ অহংকার ছিলনা তাঁর। তাঁর সুযোগ্য সন্তান এমপি মিতা তারই ধারাবাহিকতায় কাজ করে যাচ্ছেন সন্দ্বীপের মানষের জন্য। সন্দ্বীপের জন্য বড় একটি কাজ হাতে নিয়েছেন মিতা। সেটা হল সন্দ্বীপের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেয়ার কাজ। অল্প কিছুদিনের মধ্যে সন্দ্বীপের ঘরে ঘরে পৌছে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এ সালাম । তিনি আমলাতান্ত্রিক জটিলতার সমালোচনা করে বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী চলেন বিদ্যুৎ গতিতে আর আমলারা চলেন সম্বুক গতিতে।’’ তিনি এমপি মিতাকে সন্দ্বীপে একটি ভালো মানের হাসপাতাল করার পরামর্শ দেন। তিনি বয়সে নবীন সন্দ্বীপের জনপ্রিয় সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতাকে সন্দ্বীপের উন্নয়নে প্রবীণ ব্যাক্তিদের বিশেষ করে সচিবালয়ে কর্মরত সন্দ্বীপের সন্তানদের পরামর্শ নেয়ার পরামর্শও দেন।

12193480_1595308614023188_171217546269198186_nসভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন স্মরণ সভা কমিটির সদস্য মো. শাহ আলম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-সন্দ্বীপ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক- মশিউর রহমান বেলাল, মাষ্টার কে এম আজিজ উল্যা,  উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা মোকতাদের মাওলা সেলিম, উত্তর জেলা যুবলীগ সদস্য নজরুল ইসলাম আকবর, দ্বীপবন্ধুপুত্র সন্দ্বীপ উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি জিল্লুর রহমান, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক ছিদ্দিকুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা নুর ছাপা, উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম সাগর, সাখাওয়াত হোসেন নাছির, সন্দ্বীপ এসোসিয়েশন এর সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান ফরহাদ, সন্দ্বীপ এডোকেশন সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক কে এম কামরুল আহসান উল্যা, দেলোয়ার হোসেন সন্দ্বীপি, এস এম ইব্রাহিম।

অনষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন স্মরণ সভা কমিটির সচিব মাকসুদের রহমান, সদস্য সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, সালা উদ্দিন বাবু। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলোয়াত করেন হাফেজ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক লায়ন মোহাম্মদ জাহাঙ্গির আলম,  সোনালী ব্যাংক এর ডিজিএম সৈয়দ আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এসোসিয়েশন (বনপা) চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সহ সভাপতি সাংবাদিক শাহাদাৎ হোসেন আশরাফ, রূপালী লাইফের এমডি গোলাম কিবরিয়া, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আবুল বাসার ভূঁইয়া সন্দ্বীপী, কৃষকলীগ নেতা কামরুল হাসান আলাল, ব্যবসায়ী নেতা আবুল কাশেম, আওয়ামীলীগ নেতা জামসেদুর রহমান, লায়ন জসিম উদ্দিন প্রমুখ।

বাবার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা, আবেগগন কন্ঠে মরহুম মুস্তাফিজুর রহমানকে সন্দ্বীপের আপামর জনসাধারণের একজন প্রকৃত বন্ধু হিসেবে স্বীকৃতি দিলেও বাবা হিসেবে পাষাণ বাবা বলে আখ্যায়িত করেন। তিনি কান্না জড়িত কন্ঠে তার ভাই এর মৃত্যুর সময় বাবা মুস্তাফিজ সন্তানের কাছে না থেকে সন্দ্বীপে অবস্থান ও দাপনকার্যে অনুপস্থিত থাকার কথা উল্লেখ করে বলেন, সন্দ্বীপের কাজ তাঁর কাছে নিজ পরিবার ও সন্তানদের চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সন্দ্বীপের সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহের কথা উল্লেখ করে বলেন, অপরাধী যেই হউক তার স্বাস্তি হবেই, দলীয় পরিচয়ে কেউ পার পাবেনা। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের গসিপিং থেকে বিরত থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন চিত্র জনগনের সামনে তুলে ধরার আহবান জানান। তিনি আয়োজক কমিটিকে স্মরণ সভা, দোয়া মাহফিল ও মেজবানের আয়োজন করার জন্য চট্টগ্রামস্থ সন্দ্বীপবাসীকে ধন্যবাদ জানান।

12193376_1595308620689854_8645870159064740017_n


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন