আজ সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ ইং, ০৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



দিয়াজের ‘আত্মহত্যা’, পরিবারের প্রত্যাখ্যান

Published on 24 November 2016 | 3: 23 am

অস্বাভাবিকভাবে মৃত্যুবরণ করা ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর মরদেহের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়েছে।

ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে দিয়াজের মৃত্যু আত্মহত্যাজনিত কারণে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে এ ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখান করেছেন দিয়াজের পরিবার।

চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) রেজাউল মাসুদ বলেন, ‘বুধবার দুপুরে আমাদের হাতে এই প্রতিবেদন আসে। আমরা ফরেনসিক বিভাগের তৈরি করা ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেয়েছি। এতে দিয়াজের মৃত্যু আত্মহত্যাজনিত কারণে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তার গলায় আঁচড়ের দাগ আত্মহত্যা কাজে ব্যবহৃত সরঞ্জামের কারণে হয়েছে।’

প্রতিবেদনে একজন অধ্যাপক ও দুইজন সহকারী অধ্যাপকের স্বাক্ষর রয়েছে বলে তিনি জানান। প্রতিবেদনের বিষয়ে জানার পরপরই পরিবারের পক্ষ থেকে এই প্রতিবেদন প্রত্যাখান করা হয়েছে।

দিয়াজ ইরফান চৌধুরী বড় বোন অ্যাডভোকেট জুবাইদা ছরওয়ার নিপা বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত আমার ভাইকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এই প্রতিবেদন প্রত্যাখান করছি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা এ বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তড়িঘড়ি করে এ প্রতিবেদন দেয়া হয়েছে।’

এদিকে দিয়াজ ইরফানকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ এনে বিচারের দাবিতে আবারও শাটল ট্রেন আটকে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের একটি পক্ষ।

বুধবার নগরীর ষোলশহর স্টেশন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়গামী সকাল পৌনে ১০টার ট্রেনটি সোয়া ১০টার দিকে হাটহাজারীর ফতেয়াবাদ স্টেশনে পৌঁছালে বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা ট্রেনটি আটকে দেয়।

ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার সাহাবুদ্দিন বলেন, পৌনে ১০টার বিশ্ববিদ্যালয়গামী ট্রেনটি ফতেয়াবাদ স্টেশনে পৌঁছালে তারা শাটল ট্রেনটি আটকে দেন। এ কারণে সকাল সাড়ে ১০টার বিশ্ববিদ্যালয়গামী শাটল ট্রেনটি ষোলশহর স্টেশন ছেড়ে যেতে পারেনি।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন