আজ বুধবার, ২০ জুন ২০১৮ ইং, ০৬ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



প্রথমবারের মতো এসএমই মেলার আয়োজন করছে চিটাগাং চেম্বার ।। ৩ থেকে ৫ ডিসেম্বর চলবে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে

Published on 14 November 2016 | 3: 12 am

তরুণ ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক এসএমই মেলার আয়োজন করতে যাচ্ছে চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি। তিনদিনের ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা মেলায় ভারত, থাইল্যান্ড সহ দেশের ৬৫টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়ার সুযোগ পাবে। উদ্যোক্তারা মেলায় নিজেদের পণ্য প্রদর্শনীর করতে পারবেন। এছাড়া মেলায় থাকবে বিভিন্ন ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান। আগামী ৩ থেকে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আগ্রাবাদস্থ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে মেলা চলবে।

চেম্বার সূত্রে জানা গেছে, তরুণ উদ্যোক্তাদের তাদের পণ্য প্রর্দশনীর সুযোগ করে দিতে এবং যারা উদ্যোক্তা হতে চান তাদের পরামর্শ দিতেই এই মেলা আয়োজন করা হচ্ছে। মেলায় সরাসরি কোন ক্রয়বিক্রয় হবে না। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের নীচ তলায় এই মেলা চলবে। পাট পণ্য, এগ্রো ফুড, ভোগ্যপণ্য, যন্ত্রাংশ নির্মাণ প্রতিষ্ঠান, চামড়া ও জুতা, হস্ত শিল্প, ইলেক্ট্রনিক পণ্য নিয়ে মেলায় অংশ নিতে পারবেন ব্যবসায়ীরা। এছাড়া আইটি প্রতিষ্ঠান, সিরামিক, ফার্নিচার, ইন্টেরিয়র ডিজাইন, জুয়েলারি, ব্যাংক ও বীমা

প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিতে পারবে। মেলা এলাকাকে প্রাইম জোন ও জেনারেল জোনে ভাগ করা হয়েছে। প্রাইম জোনে থাকবে ২৫টি প্রতিষ্ঠান। ব্যাংক, বীমা, অর্থিক প্রতিষ্ঠানের স্টল থাকবে এখানে। জেনারেল জোনে ৪০ টি উদ্যোক্তা স্টল থাকবে। মেলায় মহিলা উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ ছাড় দেয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে দেশের নানা প্রান্ত থেকে মহিলা উদ্যোক্তারা মেলায় অংশ নেয়ার জন্য বুকিং দিয়েছে। আগামী ৩ তারিখ সকাল ১০ টায় পরিকল্পনা মন্ত্রী মোস্তফা কামাল মেলার উদ্বোধন করবেন বলে আয়োজকরা জানান। মেলা কমিটির আহ্বায়ক ও চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ বলেন, মেলায় পূবালী, স্ট্যান্ডার্ড, এসআইবিএল, এনসিসি, কৃষি, বেসিক ব্যাংক সহ কয়েকটি ব্যাংক অংশ নেবে।মেলা আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য হলোক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের পণ্য ক্রেতাদের সামনে তুলে ধরা। এছাড়া ব্যাংক, বীমা ও অর্থিক প্রতিষ্ঠান গুলো উদ্যোক্তাদের আর্থিক সহায়তার বিষয়টি তুলে ধরবে। ঋণ সুবিধা, বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ব্যাংকের ভূমিকা বিষয়ে উদ্যোক্তারা জানতে পারবেন। তিনি জানান, ভারতের ত্রিপুরা,মনিপুর ও থাইল্যান্ডের ব্যবসায়ীরা মেলায় অংশ নেবেন। উদ্যোক্তারা মেলায় শুধুমাত্র তাদের পণ্য প্রদর্শন করতে পারবেন। তবে চাইলে অর্ডার নেয়া যাবে। দেশের বাইরে মেলাগুলো এভাবে আয়োজন করা হয়। মেলায় এখনও স্টল বুকিং চলছে। পণ্যকে ক্রেতাদের কাছে পরিচিতি করে তোলাই এ মেলার লক্ষ্য। এতে পণ্যের প্রচার যেমন বাড়বে, তেমনি নতুন ক্রেতাও সৃষ্টি হবে।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন