আজ শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ ইং, ০৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



চট্টগ্রামে ব্রিটিশ সুপারসনিক আজ অ্যারোবেটিক শো

Published on 12 November 2016 | 3: 47 am

শব্দের চেয়ে দ্রুত গতির বিমান। চোখের পলকে হাওয়ায় মিলিয়ে যায়। মুহূর্তে হাজির হয়। এটি ব্রিটিশ রয়েল এয়ারফোর্সের সুপারসনিক বোমারু বিমান। এ রকম ১২টি অত্যাধুনিক বিমান এবং দুটি সি১৩০ মডেলের বিমান আজ শনিবার সকালে চট্টগ্রামের আকাশে কসরত দেখাবে। চৌদ্দটা বিমানের বহর নিয়ে রয়েল এয়ারফোর্সের অ্যারোবেটিক টিমের সদস্যরা আজ সকালে চট্টগ্রামে আসছেন। এখানে আড়াই ঘণ্টা অবস্থান করবে রাফাত রেড অ্যারোস। এর মধ্যে এক ঘণ্টা বিমানগুলোর জ্বালানি সংগ্রহে, বাকি সময় অ্যারোবেটিক প্রদর্শনীতে ব্যয় হবে। কসরত করার পাশাপাশি ল্যান্ডিং এবং টেকঅফের কসরতও দেখানো হবে। সকালে দেড় ঘণ্টা পতেঙ্গার আকাশজুড়ে থাকবে সুপারসনিকের আনাগোনা।

ব্রিটিশ রয়েল এয়ারফোর্স পৃথিবীর অন্যতম সেরা বিমান বাহিনী। প্রায় একশ বছরের পুরনো এই বাহিনীর (১৯১৮ সালে যাত্রা) অ্যারোবেটিক কর্মকাণ্ডের জন্য আলাদা একটি টিম রয়েছে। রেড অ্যারোস নামে পৃথিবীব্যাপী পরিচিত এই টিম। ব্রিটিশ রয়েল এয়ারফোর্স অ্যারোবেটিক টিমের (রাফাত) অঙ্গপ্রতিষ্ঠান এটি। বিমান বাহিনীর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চট্টগ্রামের আকাশে এবারই প্রথম একসাথে বারোটি সুপারসনিক বোমারু বিমান দেখা যাবে। তারা বলেন, এদের মহড়া সাধারণ মানুষের কাছে দেখার ব্যাপার হলেও বিমান বাহিনীর সদস্যদের জন্য শিক্ষণীয় অনেক কিছু থাকবে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর আলাদা কোনো অ্যারোবেটিক টিম নেই। তবে বিভিন্ন স্কোয়াড্রন থেকে নেয়া চৌকশ অফিসার এবং বৈমানিকদের নিয়ে বিমানবাহিনী অ্যারোবেটিক টিম গঠন করে। এই টিম বিভিন্ন জাতীয় দিবস এবং সশস্ত্র বাহিনী দিবসে অ্যারোবেটিক শো প্রদর্শন করে।

তবে রেড অ্যারোস শুধুমাত্র অ্যারোবেটিক কার্যক্রমের জন্য নির্ধারিত। ওখানে প্রতিটি বিমানের পাইলট নির্ধারিত থাকেন। ব্যক্তিগত গাড়ির মতো যে যার বিমান নিয়েই আকাশে ওড়েন, কসরত দেখান।

এ উপলক্ষে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর জহুরুল হক ঘাঁটিতে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। রেড অ্যারোস আগামীকাল ভারতের কলকাতায় একইভাবে প্রদর্শনী করবে বলে বিমানবাহিনীর এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন