আজ বুধবার, ২০ জুন ২০১৮ ইং, ০৬ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



কাউকে সুখে রাখতে পারাটাই হলো জীবনের ও মানবতার সবচেয়ে বড় সার্থকতা

Published on 06 November 2016 | 11: 50 pm

:: জামিল উদ্দিন মিন্টু, টরেন্টো, কানাডা থেকে ::

 


এক দরিদ্র ব্যক্তি আমাকে
জিজ্ঞাসা করলোঃ “আমি এতো দরিদ্র কেন ?
জবাবে আমি তাকে বললামঃ “কারন তুমি দান কর না এবং করতেও জানো না।
ঐ দরিদ্র ব্যক্তি বললঃ “আমার তো দান করার মত কিছুই নাই ।
 
অতঃপর আমি তাকেই বললাম “দান করার মত অনেক কিছুই আছে তুমি সহ এই পৃথিবীর সকলের কাছে ।
 
মহান সৃষ্টিকক্তার আমাদের ঐ ভাবেই সৃষ্টি করেছেন “অর্থাৎ তা ধনী-গরীব সবার কাছেই সমপরিমাণ থাকে ” আর তা হল –
 
১. চেহারাঃ যা দ্বারা তুমি সুখ ও আনন্দের হাসি উপহার হিসেবে অন্যদের দিতে পারো।
২. মুখঃ যা দ্বারা তুমি মাধুর্য্যপূর্ণ উৎকৃষ্ট কথা বলে মানুষকে আনন্দ ও উৎসাহ প্রদান করতে পারো।
 
৩. হৃদয়ঃ যা তুমি আন্তরিকতা ও উদারতা দ্বারা অন্যদের জন্য উন্মুক্ত করে দিতে পারো।
৪. চোখঃ যা দ্বারা তুমি দয়া ও ভালোবাসার সাথে অন্যদের দেখতে পারো।
৫. দেহঃ যা দ্বারা তুমি নিজের শ্রমের মাধ্যমে অন্যদের সাহায্য প্রদান করতে পারো।
আর তাই তো তুমি একেবারেই দরিদ্র নও। মূলত হৃদয়ের দারিদ্রতাই প্রকৃত দারিদ্রতা, আর্থিক দারিদ্রতা মূল দারিদ্রতা নয়।
 
মানুষের জীবনে সুখে থাকাই জীবনের চরম সার্থকতা নয়,
বরং কাউকে সুখে রাখতে পারাটাই হলো জীবনের ও মানবতার সবচেয়ে বড় সার্থকতা।
আর ইসলাম ধর্ম তাই বলে
 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন