আজ বুধবার, ২০ জুন ২০১৮ ইং, ০৬ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



হুমকিতে বেসরকারি টিভি চ্যানেল – ১০০ কোটি টাকার বেশি পাচারের অভিযোগ

Published on 06 November 2016 | 3: 20 am

বিদেশী বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে দেশীয় কোম্পানির বিজ্ঞাপন প্রচারে হুমকির মধ্যে পড়ছে বেসরকারি স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলগুলো। এক শ্রেণীর কোম্পানি এসব বিজ্ঞাপন দিচ্ছে। এর মাধ্যমে দেশ থেকে মোটা অংকের অর্থ পাচার করা হচ্ছে।

শনিবার ঢাকা ক্লাবে ‘মিডিয়া ইউনিট’ নামে নতুন সংগঠন আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে টেলিভিশন মালিক, শিল্পী ও কলাকুশলীরা এ কথা বলেছেন। তারা নভেম্বরের মধ্যে এসব বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধেরও দাবি জানান। অন্যথায় রাজপথে নামার হুমকি দিয়েছেন তারা।

বক্তারা বলেন, এ পর্যন্ত ১০০ কোটি টাকার বেশি দেশ থেকে চলে গেছে বিজ্ঞাপন প্রচারের নামে। বিদ্যমান আইনে এভাবে দেশের অর্থ বিদেশে যেতে পারে কিনা- তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তারা। দেশী স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলগুলোর জন্য বিজ্ঞাপনের একটি নির্দিষ্ট বাজার রয়েছে। এ বাজার থেকে বিজ্ঞাপনের অর্থ এখন বিদেশে নেয়া হচ্ছে। এর মাধ্যমে মানি লন্ডারিং হচ্ছে। অর্থ পাচার করতেই এ ধরনের পথ বেছে নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বক্তরা।

অনুষ্ঠানে এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান বলেন, এ ধরনের কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে। তা না হলে যে কোনো মূল্যে সম্মিলিতভাবে এর প্রতিরোধ করা হবে।

অন্য বক্তারা বলেন, বিজ্ঞাপনের নামে এভাবে বিদেশে টাকা চলে যাওয়ায় দেশে বিজ্ঞাপনের অর্থ কমছে। এভাবে চলতে থাকলে দেশের অনেক চ্যানেল বন্ধ হয়ে যাবে। বেকার হবে হাজার হাজার কর্মী। এ পরিস্থিতি ঠেকাতে সরকারকে এ ব্যাপারে দ্রুত হস্তক্ষেপ করার আহ্বান জানানো হয়।

বক্তারা আরও বলেন, বাংলাদেশে বিদেশী চ্যানেলগুলোর অনুষ্ঠান প্রচার হচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশের কোনো চ্যানেল পার্শ^বর্তী দেশে প্রচার করতে দেয়া হচ্ছে না। আবার প্রচার করতে দেয়া হলেও বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ চার্জ দিয়ে তা প্রচার করতে হয়।

অনুষ্ঠানে নিজেদের প্রোগ্রামের মানোন্নয়নের জন্য বেসরকারি টিভি চ্যানেল মালিকরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছেন। তারা বলেন, অনুষ্ঠানের মান ভালো হলে, নিজের দেশের দর্শকরা বাইরের চ্যানেলের অনুষ্ঠান বর্জন করবেন।
অনুষ্ঠানে একাত্তর টিভির প্রধান সম্পাদক মোজাম্মেল বাবুকে আহ্বায়ক করে মিডিয়া ইউনিট নামে একটি নতুন সংগঠনের নাম ঘোষণা করা হয়।

অ্যাসোসিয়েশন অব টিভি চ্যানেল অব বাংলাদেশ আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, যমুনা টিভির হেড অব কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড বিজনেস ডেভেলপমেন্ট কাজী জেসিন প্রমুখ।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন