আজ শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ ইং, ০৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিতে সমন্বিত পরীক্ষার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

Published on 03 November 2016 | 3: 04 am

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছুদের দুর্ভোগ লাগবে সমন্বিত ভর্তি প্রক্রিয়া চালুর আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের বিশ্ববিদ‌্যালয়গুলোর চ্যান্সেলর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

বুধবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের ‘অষ্টম ইউজিসি অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি এ বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।

রাষ্ট্রপতি বলেন, অন্যান্য বছরের ন্যায় এবছরও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় বিশেষ করে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের এক শহর থেকে অন্য শহরে ছোটাছুটি করতে হয়েছে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে গিয়ে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা যে অবর্ণনীয় সমস্যা বিশেষ করে যাতায়াত ও থাকা-খাওয়ার সমস্যায় পড়েছে, তা কল্পনাতীত।

এসময় বিভিন্ন শহরে ছেলে-মেয়েদের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পাঠাতে অনেক অভিভাবকদের সামর্থ্য না থাকার কথা বলেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। আবার সামর্থ‌্য থাকলেও এক দিনে এত সংখ‌্যক শিক্ষার্থীর ভার নিতে বিভিন্ন শহরের অসামর্থ‌্যের বিষয়টিও তুলে ধরেন তিনি।

“তাই উচ্চশিক্ষায় ভর্তির ক্ষেত্রে এই অবস্থার অবসান হওয়া একান্ত আবশ্যক। কেন্দ্রীয়ভাবে বা অঞ্চলভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষার ব্যবস্থা করলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে পারে বলে আমি মনে করি,” বলেন রাষ্ট্রপতি।

চ্যান্সেলর আবদুল হামিদ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভিসিদের বিষয়টি নিয়ে ‘বাস্তবমুখী উদ্যোগ’ নেয়ার আহ্বান জানান। একইসঙ্গে বিশ্ববিদ‌্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ও শিক্ষামন্ত্রীর তৎপরতাও প্রত‌্যাশা করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, “উচ্চশিক্ষায় আগ্রহী শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সুযোগ তৈরি করে দেওয়া আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। আমরা চাই, দেশের প্রতিটি শিক্ষার্থী যাতে তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী উচ্চশিক্ষা লাভের সুযোগ পায়।”

এসময় রাষ্ট্রপতি সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বানও জানান।

তিনি গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার কথা তুলে ধরে বলেন, “এসব অপকর্মের সঙ্গে কিছু বিপথগামী তরুণের পাশাপাশি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া কিছু ছাত্রের সম্পৃক্ত হওয়ার খবর আমাদেরকে ভাবিয়ে তুলেছে।

“এটা বিশ্ববিদ্যালয় তো বটেই, গোটা জাতির মর্যাদাকে ক্ষুণ্ন করেছে। উঠতি মেধাবী তরুণদের যারা উগ্র মৌলবাদ, সন্ত্রাসী বা জঙ্গি কার্যক্রমে সম্পৃক্ত হওয়ার মদদ দিচ্ছে তাদের চিহ্নিত করে সমূলে উৎপাটন করতে হবে।”

পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কঠোর নিয়মানুবর্তিতা, নিয়মিত পরীক্ষা ও ফলাফল প্রকাশসহ খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রম জোরদার করতে বলেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে বাস্তবমুখী গবেষণার দিকে দৃষ্টি দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, “গবেষণার উদ্দেশ্য যাতে কেবল ডিগ্রি অর্জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে বাস্তবমুখী হয় এবং দেশ ও জাতির কল্যাণে আসে সেদিকে সবিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে।”

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, ইউজিসি সদস্য দিল আফরোজ বেগম এবং পুরস্কার প্রাপ্ত আয়শা আক্তার ও ড. প্রণব কুমার পান্ডে বক্তৃতা করেন।

অনুষ্ঠানে মৌলিক গবেষণামূলক প্রবন্ধ ও বইয়ের স্বীকৃতি হিসেবে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১৯ জন গবেষককে ইউজিসি পুরস্কার ২০১৪ ও ২০১৫ দেয়া হয়।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন