আজ বৃহঃপতিবার, ২১ জুন ২০১৮ ইং, ০৭ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



যেকোনো মুহূর্তে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার

Published on 01 November 2016 | 9: 57 am

গুলিস্তানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসির) উচ্ছেদ অভিযানের সময় গুলি ছোড়ার দায়ে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে যেকোনো মুহূর্তে গ্রেপ্তার করা হবে। মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মহানগর গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার আব্দুল বাতেন এ কথা বলেন।

সোমবার রাতে রাজধানীর গাবতলী থেকে অস্ত্রসহ ভারতীয় অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ীকে আটক করার পর এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। তিনি বলেন, ‘তাদের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা তাদেরকে গ্রেপ্তারে তৎপর আছি। যেকোনো মুহূর্তে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হবে।’

গত ২৭ অক্টোবর গুলিস্তানে ফুটপাত ও সড়ক থেকে হকারদের উচ্ছেদ করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। এ সময় ডিএসসিসির কর্মচারী ও একদল যুবকের সঙ্গে ওই এলাকার হকারদের দফায় দফায় পাল্টাপাল্টি ধাওয়া এবং সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে ওই যুবকদের মধ্যে সাব্বির হোসেন ও আশিকুর রহমান ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। এ প্রেক্ষিতে সোমবার তাদেরকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। পরে ওই দিন রাতেই শাহবাগ থানায় উপপরিদর্শক আব্দুল মান্নান বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

এদিকে ডিবির হাতে অস্ত্রসহ আটক ভারতীয় অস্ত্র ব্যবসায়ী মো. খায়রুল ইসলাম মণ্ডল ওরফে শরিফুল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আটককৃত খায়রুল অস্ত্র ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। সে অবৈধভাবে বাংলাদেশের বেনাপোল সীমান্তে বিভিন্ন সময় অনুপ্রবেশ করে। বাংলাদেশ ও ভারতের একটি সন্ত্রাসী গ্রুপের যোগসাজসে ভারত থেকে বাংলাদেশে অবৈধভাবে অস্ত্র নিয়ে আসে। পরবর্তী সময়ে ওই অস্ত্রগুলো ঢাকাসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন ব্যক্তির নিকট বিক্রয় করে।’

তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে খায়রুল জানিয়েছে, ভারতীয় ব্যবসায়ীরা বিহার থেকে বালুর ট্রাকে করে অবৈধ অস্ত্র পশ্চিমবঙ্গে নিয়ে আসে। পরে তারা সুযোগ বুঝে বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অস্ত্রের চালান পাঠায়। এসব অবৈধ অস্ত্র বাংলাদেশে সন্ত্রাসী কার্যকলাপে ব্যবহার হয়।’

 

 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন