আজ শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ ইং, ০৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



প্রিন্স সুলতান পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

Published on 31 October 2016 | 3: 16 am

স্যাটেলাইট ডেটা ব্যবহার করে কলেরা প্রাদুর্ভাবের পূর্বাভাস মডেল উদ্ভাবন এবং তা পরীক্ষার জন্য ‘প্রিন্স সুলতান বিন আব্দুল আজিজ ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর ওয়াটার’ ক্রিয়েটিভিটি পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশি বিজ্ঞানী ড. শফিকুল ইসলাম ও তার সহকর্মীরা।খবর বিডিনিউজের।

যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড ইউনিভার্সিটির ড. রিটা কলওয়েল ও তার দল এবং টাফটস ইউনিভার্সিটির ড. শফিকুল ও তার দলের নাম ঘোষণা করা হয়েছে সম্মানজনক এ পুরস্কারের জন্য। ‘প্রিন্স সুলতান বিন আব্দুল আজিজ ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর ওয়াটার’ কর্তৃপক্ষের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, আগামী ২ নভেম্বর নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদরদপ্তরে এক অনুষ্ঠানে এবারের বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার হস্তান্তর করা হবে।

স্যাটেলাইটে পাওয়া ক্লোরোফিল ডেটা ব্যবহার করে বাংলাদেশে মৌসুমি কলেরা ছড়িয়ে পড়ার তিন থেকে ছয় মাস আগেই তার পূর্বাভাস দেয়ার একটি মডেল তৈরি করেছেন শফিকুল ইসলাম ও তার দল। সেই মডেলের কার্যকারিতা এখন তারা মাঠ পর্যায়ে পরীক্ষা করে দেখছেন। এ বছর জর্জিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির ড. পিটার জে ওয়েবস্টার এবং তার সহকর্মীরাও সামুদ্রিক আবহাওয়া ও মৌসুমি বায়ু নিয়ে গবেষণার জন্য ক্রিয়েটিভিটি পুরস্কার পাচ্ছেন। তারা একটি মডেল তৈরি করেছেন, যার মাধ্যমে সাগরের আবহাওয়ার তথ্য নিয়ে এক বা দুই সপ্তাহ আগেই মৌসুমি বন্যার পূর্বাভাস দেয়া যায়।

প্রিন্স সুলতান বিন আব্দুল আজিজ ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর ওয়াটার’ কর্তৃপক্ষের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, সমুদ্র বিশেষজ্ঞ ও অণুজীব বিজ্ঞানী ড. রিটা কলওয়েল ও তার সহকর্মীরাই প্রথম স্যাটেলাইট ডেটা ব্যবহার করে পূর্ব এশিয়ার জন্য কলেরা প্রাদুর্ভাবের পূর্বাভাস মডেল তৈরি করেন। তারাই প্রথম বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির সঙ্গে সংক্রামক ব্যাধির যোগাযোগের বিষয়টি দেখান।

. শফিকুল ইসলাম ও তার সহকর্মীরা ড. রিটা কলওয়েলের উদ্ভাবিত পদ্ধতি ব্যবহার করে বঙ্গোপসাগরে ক্লোরোফিলের মাত্রার সঙ্গে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাবের যোগাযোগ খুঁজে পান। নাসার স্যাটেলাইট ডেটার সাহায্য নিয়ে তারা একটি মডেল তৈরি করেন, যার মাধ্যমে তিন থেকে ছয় মাস আগেই বাংলাদেশে কলেরা প্রাদুর্ভাবের পূর্বাভাস দেওয়া যায়।

গত শতকের আশির দশকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি নেওয়া শফিকুল ইসলাম পরে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান এবং এমআইটিতে পিএইচডি করেন।

বর্তমানে তিনি টাফটস ইউনিভার্সিটির নির্মাণ ও পরিবেশ প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক এবং পানি কূটনীতি (ওয়াটার ডিপ্লোমেসি) প্রোগ্রামের পরিচালকের দায়িত্বে আছেন। ভারত ও বাংলাদেশ সরকারের বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও পানি উন্নয়ন পরিকল্পনাতেও পরামর্শক হিসেবে যুক্ত আছেন তিনি।

 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন