আজ রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ইং, ১০ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



আ. লীগ সম্পাদকমণ্ডলীর নাম ঘোষণা ।। ৮ নতুন মুখ ।। বাদ তিন মন্ত্রী

Published on 26 October 2016 | 3: 04 am

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সম্পাদকমণ্ডলীর আরও ২২ সদস্যের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। জাতীয় সম্মেলনের দুই দিনের মাথায় গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তাঁদের নাম ঘোষণা করেন। এর মাধ্যমে দলটির গুরুত্বপূর্ণ প্রায় সব পদের নাম ঘোষণা হলো। আগের কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন এমন তিনজন মন্ত্রী বাদ পড়েছেন নতুন কমিটিতে। যে তিনজন মন্ত্রীর পদে নতুন নাম ঘোষণা হয়েছে, তাদের মধ্যে অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক, সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর ছিলেন সাংস্কৃতিক সম্পাদক এবং পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক। আগের কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন আরো এক মন্ত্রী। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক পদ থেকে পদোন্নতি পেয়ে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হয়েছেন। তবে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান এখনো পদ না পেলেও তার আগের কমিটির পদটি এখনো খালি আছে। এ পর্যন্ত ঘোষিত সম্পাদকমণ্ডলীর ছয়টি পদে এসেছে নতুন মুখ। আগের কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মো. মিসবাহ্‌ উদ্দিন সিরাজ, বি এম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এবারও একই দায়িত্বে আছেন। তাদের সঙ্গে যোগ হয়েছে এনামুল হক শামীম ও ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল নাম। ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এনামুল হক শামীম আগের কমিটিতে কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য ছিলেন। মঙ্গলবার পর্যন্ত ঘোষিত সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ছাড়া মন্ত্রী নেই একজনও। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাকের বোন শামসুন নাহার চাঁপাকে নতুন কমিটির শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদকের পদ দেয়া হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে ক্ষমতাসীন দলটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির গুরুত্বপূর্ণ দুটি পদে স্থান পেলেন দুই ভাইবোন।

গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে ৩৪ জন সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য রয়েছেন। এর মধ্যে সম্পাদকমণ্ডলীর ২৭টি পদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। বাকি সাতটি পদ আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, কৃষি ও সমবায়, পরিবেশ ও বন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, যুব ও ক্রীড়া, উপদপ্তর, উপপ্রচার ও প্রকাশনা পদে কারও নাম ঘোষণা করা হয়নি। এ ছাড়া সদস্য পদেও কোনো নাম ঘোষণা করা হয়নি। গত রোববার দলটির ২০তম জাতীয় সম্মেলনে সভাপতি, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, সাধারণ সম্পাদক, চারজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং কোষাধ্যক্ষসহ ২১জনের নাম ঘোষণা করা হয়। ঘোষণা না হওয়া বাকি পদগুলোর নাম দুএক দিনের মধ্যেই ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছিলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এবারের সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির আকার ৭৩ থেকে ৮১ সদস্যবিশিষ্ট করা হয়।

বিডিনিউজ বাংলানিউজসহ বিভিন্ন সংবাদ সংস্থার খবরে জানা গেছে, সম্পাদকমণ্ডলীতে নতুন মুখ অর্থ ও পরিকল্পনাবিষয়ক সম্পাদক রংপুর৪ আসনের সাংসদ টিপু মুন্সি। এই পদে আগে ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আইনবিষয়ক সম্পাদক আবদুল মতিন খসরু আগের পদেই রয়েছেন। তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন স্বপদেই বহাল আছেন। সদস্য থেকে পদোন্নতি পেয়ে ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সুজিত রায় নন্দী। আর দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক শেখ আবদুল্লাহ, প্রচার ও প্রকাশনাবিষয়ক সম্পাদক হাছান মাহমুদ, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাও আছেন আগের পদে। উপদপ্তর সম্পাদক থেকে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক পদে পদোন্নতি পেয়েছেন মৃণাল কান্তি দাস। এই পদে আগে ছিলেন সাবেক মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এ বি তাজুল ইসলাম।

শিক্ষা ও মানবসম্পদবিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন শামসুন নাহার চাঁপা। এই পদে থাকা শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ নতুন কমিটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হয়েছেন। শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক আবদুছ ছাত্তার, শ্রম ও জনশক্তিবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজও আছেন আগের মতো। উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক থেকে এবার সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন অসীম কুমার উকিল। এই পদে আগে ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক পদে নতুন মুখ হিসেবে এসেছেন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) রংপুর বিভাগীয় সহসভাপতি রোকেয়া সুলতানা। এই পদে আগে ছিলেন বদিউজ্জামান ভূঁইয়া।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদ পেয়েছেন আহমেদ হোসেন, মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, বি এম মোজাম্মেল, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এ কে এম এনামুল হক শামীম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও মহিবুল হাসান চৌধুরী। এদের মধ্যে ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এনামুল হক শামীম আগের কমিটির সদস্য ছিলেন। আর নতুন মুখ মহিবুল হাসান চৌধুরী চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর ছেলে। সাংগঠনিক সম্পাদক থেকে বাদ পড়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং।

সভাপতিমণ্ডলীর ১৭টি পদের মধ্যে যে ১৪ জন, কোষাধ্যক্ষ এবং চার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকসহ ২১ পদে যাদের নাম আগে ঘোষণা করা হয়েছিল, সে নামগুলো এই সংবাদ সম্মেলনেও পরে শোনান কাদের।

সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য : সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, কাজী জাফর উল্যাহ, সাহারা খাতুন, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য, নুরুল ইসলাম নাহিদ, আবদুর রাজ্জাক, ফারুক খান, রমেশ চন্দ্র সেন, আবদুল মান্নান খান।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক: মাহাবুবউলআলম হানিফ, দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান

কোষাধ্যক্ষ : এন এইচ আশিকুর রহমান

সভাপতিমণ্ডলীর তিনটি, সম্পাদকমণ্ডলীর পাঁচটি, উপ সম্পাদকের দুটি এবং কার্যনির্বাহী সংসদের ২৮টি পদে কারা দায়িত্ব পাবেন তা এখনও ঘোষণার অপেক্ষায়। ওবায়দুল কাদের জানান, আগামী শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় নতুন সভাপতিমণ্ডলীর প্রথম সভা বসবে। সেখানে কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য নির্বাচন করা হবে। এছাড়া বাকি পদগুলোসহ পূর্ণাঙ্গ কমিটি এক সপ্তাহের মধ্যে ঘোষণা করা হবে বলে জানান তিনি। সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমি এটুকু বলতে পারি, কমিটিতে নতুন রক্তের সঞ্চার হবে।

 

 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন