আজ রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ইং, ১০ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সরকারি প্রতিষ্ঠানের ক্রয়ক্ষমতা বেড়ে ১০০ কোটি টাকা

Published on 24 October 2016 | 9: 55 am

একক ক্ষমতায় এখন থেকে ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত পণ্য কিনতে পারবে সরকারি সব প্রতিষ্ঠান। এই পরিমাণ অর্থের পণ্য কেনার ক্ষেত্রে ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন লাগবে না। এতদিন এককভাবে পণ্য কেনার ক্ষমতা ছিল ৫০ কোটি টাকা পর্যন্ত।

সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির কার্যপরিধি বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব মোহাম্মদ শফিউল ইসলাম এ তথ্য জানান। তিনি জানান, ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন ছাড়াই সরকারি সব প্রতিষ্ঠান ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত পণ্য কেনার ক্ষমতা পাচ্ছে। তবে ১০০ কোটি টাকার ঊর্ধ্বের কোনো পণ্য কিনতে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন নিতে হবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, অনুন্নয়ন বাজেটের ক্ষেত্রে পূর্ত কাজের জন্য রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সব প্রতিষ্ঠানও ১০০ কোটি টাকা পর্যন্ত পণ্য এককভাবে কিনতে পারবে। তবে পূর্ত কাজের যন্ত্রপাতি ক্রয়ের এ সীমা ৫০ কোটি টাকাই থাকবে।

এ ছাড়া উন্নয়ন প্রকল্পের পরামর্শক নিয়োগের ক্ষেত্রে ৩০ কোটি টাকা এবং অনুন্নয়ন বাজেটের ক্ষেত্রে ২০ কোটি টাকা এককভাবে খরচের ক্ষমতা দেওয়ার প্রস্তাব বিবেচনার জন্য বলা হয়।

বিদ্যমান ব্যবস্থায় দুটি ক্ষেত্রেই পরামর্শক নিয়োগে সরকারি প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন ছাড়া এককভাবে ব্যয় সীমা ছিল ১০ কোটি টাকা। বর্তমানে পূর্ত কাজ ও ভৌত সেবা এবং পণ্য ও সংশ্লিষ্ট সেবা চুক্তি অনুমোদনের ক্ষেত্রে ৫০ কোটি টাকার ঊর্ধ্বের যেকোনো প্রস্তাব এবং পরামর্শক সেবার জন্য ১০ কোটি টাকার ঊর্ধ্বের যেকোনো প্রস্তাব বিবেচনার জন্য সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে পাঠাতে হয়।

মন্ত্রীপরিষদ সচিব আরো জানান, মূলত উন্নয়ন প্রকল্প ও অনুন্নয়ন বাজেটের পূর্ত কাজের জন্য আর্থিক সীমা নির্ধারণের এ প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় পাঠায় অর্থ বিভাগ।

 

 

 

 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন