আজ সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ ইং, ০৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



স্বপ্নভঙ্গের মাঝেও গর্বের রসদ

Published on 24 October 2016 | 6: 05 am

উৎসবের মঞ্চ প্রস্তুত ছিল। টেস্টে ইংল্যান্ড-বধের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ভাগ্যদেবী সঙ্গে না থাকায় একটুর জন্য হলো না! সাগরিকায় কান পাতলেই শোনা যাবে হাহাকারের ছোট্ট ছোট্ট গল্প! বাংলাদেশের ড্রেসিং রুমে হতাশা, পুরো স্টেডিয়াম স্তব্ধ। টাইগার শোয়েব তবুও ‘বাংলাদেশ-বাংলাদেশ’ বলে চিৎকার করেই যাচ্ছেন!

গত চারদিন দিনের প্রথম ঘন্টায় ডাক দিয়ে স্টেডিয়ামে দর্শক ঢোকাতে হয়েছে! কিন্তু আজ সকাল থেকেই নিরাপত্তাকর্মীরা দর্শকের চাপে হিমশিম খেয়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল যখন স্টেডিয়ামে প্রবেশ করে, তখন স্টেডিয়ামের পাশে প্রায় দুই হাজার দর্শকের উপস্থিতি। সবার ছিল একটাই প্রত্যাশা, ‘ইংল্যান্ড-বধ’।

সেই প্রত্যাশা, স্বপ্ন পূর্ণ না হলেও আইসিসি টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ের চতুর্থ দল ইংল্যান্ডকে ভুগিয়েছে বাংলাদেশ। সাড়ে ১৪ মাস পর সাদা পোশাক ও লাল বলে মাঠে নামার সুযোগ হয়নি বাংলাদেশের। অথচ এ সময়ে ইংল্যান্ড খেলেছে ১৬ টেস্ট। সাড়ে ১৪ মাস পর টেস্ট খেলতে নেমে ইংল্যান্ডকে কাঁপিয়ে দেওয়াটাও কম কিসের!

ইতিহাস গড়ার দিনে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল পাস মার্ক, ৩৩! ইংল্যান্ডের ২ উইকেট। শেষ হাসিটা হাসে ওই ইংল্যান্ড। ২২ রানের জয় নিয়ে দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে অ্যালিস্টার কুকের দল।

২১ বলের দিনে বাংলাদেশ ১০ রানে হারায় শেষ ২ উইকেট। ৫৯ রান নিয়ে দিন শুরু করা সাব্বির রহমান ম্যাচ শেষে ৬৪ রানে অপরাজিত। ১১ রানে দিন শুরু করা তাইজুল ইসলাম ৫ রান যোগ করে আউট হয়েছেন ১৬ রানে। শফিউল রানের খাতাই খুলতে পারলেন না!

শেষ দুই উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশের স্বপ্ন ভাঙেন বেন স্টোকস। দিনের দ্বিতীয় ওভারে বল হাতে বাউন্ডারি খেয়েছিলেন তাইজুলের হাতে। সেই তাইজুল স্টোকসের প্রথম শিকার। আউট সাইড অফ দ্য স্টাম্পে বল পরে লেগ স্টাম্পের কাছ ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। থাই প্যাডে লেগে বল উইকেটরক্ষককেও ফাঁকি দেয়। সাব্বির-তাইজুল দুজন দুবার প্রান্ত বদল করেন।

কিন্তু আবেদন করে সাড়া না পাওয়ায় ততক্ষণে এলবিডব্লিউর জন্য রিভিউ চায় ইংল্যান্ড। আবারও ধর্মসেনার সিদ্ধান্তে রিভিউ। তৃতীয় আম্পায়ার ভারতের সুরিন্দম রবি সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে তাইজুলকে আউট দিলেন। হক আইতে দেখা যায় বল স্টাম্পে পরে লেগ স্টাম্পে আঘাত করে। সিদ্ধান্ত মাঠের বড় স্ক্রিনে দেখানোর সঙ্গে সঙ্গে ইংলিশ ক্রিকেটাদের উল্লাস। সাব্বির হেলমেটে ব্যাট লাগিয়ে বসে কিছু একটা অনুমান হয়তো করতে পেরেছিলেন!

শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে আসা শফিউলকে নিয়ে সাব্বিরের দীর্ঘক্ষণ আলোচনা। কিন্তু কোনো ফল এল না। স্টোকসের তৃতীয় বলে এলবিডব্লিউ শফিউল। রিভিউ থাকায় শফিউল বাঁচার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু ভাগ্যদেবী মুখ ফিরে তাকায়নি। ততক্ষণে সাব্বিরের মুখে বিষাদের ছায়া। চোখে-মুখে কষ্ট যে, ইংল্যান্ড-বধের শেষ চেষ্টাটাও করতে পারলেন না! অভিষেক ম্যাচেই ভিন্ন স্বাদ।

কোটি টাকা খরচ করে ডিআরএস (ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম) ব্যবহার করছে বিসিবি। সেই ডিআরএসেই কপাল পুড়ল বাংলাদেশের!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংস : ১০৫.৫ ওভারে ২৯৩।

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস : ৮৬ ওভারে ২৪৮।

ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংস : ৮০.২ ওভারে ২৪০।

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: (লক্ষ্য ২৮৬) ৮১.৩ ওভারে ২৬৩/ (সাব্বির ৬৪*, ৪৩, মুশফিক ৩৯, মুমিনুল ২৭; ব্যাটি ৩/৬৫, স্টোকস ২/২০,  ব্রড ২/২৬, মঈন ২/৬০)।

ফল: ইংল্যান্ড ২২ রানে জয়ী।

সিরিজ: দুই ম্যাচ সিরিজে ইংল্যান্ড এগিয়ে ১-০ ব্যবধানে।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: বেন স্টোকস।

 


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন