আজ বুধবার, ২০ জুন ২০১৮ ইং, ০৬ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



মোদির সঙ্গে বৈঠকে তিস্তা ইস্যু তুললেন শেখ হাসিনা

Published on 17 October 2016 | 3: 56 am

ভারতের গোয়ায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে সার্ক, সীমান্ত সমস্যা, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে সহযোগিতার পাশাপাশি তিস্তা ইস্যু তুলে ধরেন শেখ হাসিনা। ব্রিকস-বিমসটেক আউটরিচ সামিটে সাইডলাইনে হাসিনা-মোদির মধ্যে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এ ব্যাপারে দিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রেস মিনিস্টার ফরিদ হোসেন টেলিফোনে যুগান্তরকে বলেন, ‘ভারতের প্রধামন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে অন্যান্য বিষয়ের পাশাপাশি তিস্তা ইস্যু নিয়ে কথা হয়। এ সমস্যা সমাধানে ভারতের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।’

শেখ হাসিনা ভারতের পর্যটন নগরী গোয়ায় অনুষ্ঠিত ব্রিকস-বিমসটেক আউটরিচ সম্মেলনে রোববার যোগ দেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ছাড়াও বিমসটেক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন শেখ হাসিনা।

এর আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শনিবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে শেখ হাসিনা এ সম্মেলনে যোগ দেন। এবারের সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য হল- ‘সুযোগের মধ্যে অংশীদারিত্ব।’ গোয়ায় দু’দিনের ব্রিকস সম্মেলন শনিবার শুরু হয়েছে। এ সম্মেলনের সাইডলাইনে আউটরিচ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় রোববার।

এবারের সফরে প্রধানমন্ত্রী গোয়ার বাইরে আর কোথাও যাচ্ছেন না। সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরে আসবেন। ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার দেশগুলোর জোট নিয়ে গঠিত ব্রিকসের এটি অষ্টম সম্মেলন। আউটরিচ সম্মেলনে বঙ্গোপসাগরীয় জোট বিমসটেকের নেতারা বিকালে ব্রিকস নেতাদের সঙ্গে যোগ দেন। তারা আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

২০১০ সালে শেখ হাসিনা ভারত সফরে গেলে ৫০ দফার যে চুক্তি হয়েছিল তাতে তিস্তা চুক্তি দ্রুত সম্পাদনের প্রতিশ্র“তি ছিল। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির আপত্তির কারণে ভারত সরকার এখন পর্যন্ত চুক্তিটি সই করেনি। ২০১৫ সালের জুনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ সফরকালে তিস্তা চুক্তির প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার সকালে বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে গোয়ার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। গোয়ায় পৌঁছানোর পর স্থানীয় এক হোটেলে কিছু সময় বিশ্রাম নেয়ার পর ব্রিকস-বিমসটেক আউটরিচ সম্মেলনে তিনি যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হকসহ ছোট একটি প্রতিনিধি দলও গোয়ায় গেছেন।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন