আজ শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ ইং, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সন্দ্বীপ কোষ্ট গার্ড কর্তৃক ঠ্যাঙ্গার চরে জলদস্যু নয় নিরিহ বাতানি আটক হয়েছে দাবী আমান উল্যা ইউপি চেয়ারম্যানের

Published on 10 October 2016 | 3: 13 am

সোনালী নিউজ প্রতিবেদক :: গত কাল ৯ অক্টোবর ‘সন্দ্বীপের কোষ্ট গার্ড অস্ত্র সহ জলদ্স্যু আটক করেছে’ এই খবরটি বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রচার হওয়ার পর সন্দ্বীপ উপজেলার আমান ঊল্যা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শাহাদাত চৌধুরী তাঁর ফেইসবুক ষ্ট্যাটাসে এ প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়ায় জানান- ‘‘একটু আগে জানতে পারলাম, ঠেঙ্গার চরে জলদস্যু গ্রেপ্তার হয়েছে, সংবাদটা পড়ে আনন্দিত হয়েছিলাম। পড়ে বিষয়টি জানতে পারলাম সুবর্নচরের মোহাম্মদ পুর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের জসিম উদ্দিন পিতা আব্দুল কুদ্দুছ ও আলাউদ্দীন পিতা তোফায়েল আহাম্মদ সহ অনেক বাতানিকে আটক করে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

বিষয়টি খতিয়ে দেখতে আমি প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। দুষ্টের দমন আমাদের একান্ত প্রত্যাশা। কিন্তু দুষ্টের দমন না করে নিরিহ মানুষকে হয়রানি আমাদের প্রত্যাশা নয়। এই দুই ব্যক্তি ব্যক্তিগত ভাবে আমার পূর্ব পরিচিত। আমারও মহিষ আছে, ঠেঙ্গার চরে। বাতানি চড়ায় আমার মহিষগুলা। উড়ির চরের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান রহিমেরও মহিষ আছে। আমি ঐ চরে না গেলেও রহিম চেয়ারম্যান ঠেঙ্গার চরে আসা যাওয়া করে মাঝে মধ্যে।”

সকল নিরিহ বাতানির শর্তহিন মুক্তিও চেয়েছেন আমান উল্যা ইউপির এই চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মো. শাহাদাত চৌধুরী। উল্লেখ্য বিভিন্ন মাধ্যমে আটককৃতদের ছবি দেখেও অনেকেই এদের নিরিহ কর্মজীবি, চাষী বলে মন্তব্য করেছেন। ব্যাপরটি নিরপেক্ষ ভাবে খতিয়ে দেখা প্রয়োজন বলে বিজ্ঞ মহল মনে করছেন।


Advertisement

আরও পড়ুন