আজ বৃহঃপতিবার, ২১ জুন ২০১৮ ইং, ০৭ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



তানভীর ও সোমাকে রাবির পরীক্ষা কার্যক্রম থেকে বহিষ্কার

Published on 02 October 2016 | 2: 51 am

উত্তরপত্র মূল্যায়ণে অনিয়মের দায়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দুই শিক্ষক তানভীর আহমদ ও সোমা দেবকে পরীক্ষা কার্যক্রম থেকে পাঁচ বছরের জন্যে বহিষ্কার করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিনের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান এ তথ্য জানিয়েছেন।

বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের তৃতীয় বর্ষের ৩০৫ নম্বর কোর্সের যৌথভাবে শিক্ষক ছিলেন তানভীর আহমদ ও সোমা দেব। কোর্সটির দুটি ইনকোর্সের মধ্যে প্রথম ইনকোর্সের দায়িত্বে ছিলেন তানভীর আহমদ। সেটির নম্বর তানভীর আহমদের দেওয়ার কথা থাকলেও নম্বরপত্রে উল্লেখ আছে সোমা দেবের হাতে লেখা নম্বর। সেখানে কয়েকটি নম্বরে ঘষামাজা করেন সোমা দেব।

ঘষামাজা জায়গাগুলোতে স্বাক্ষরও করেন সোমা দেব। তবে মূল পরীক্ষকের স্বাক্ষর হিসেবে উল্লেখ আছে তানভীর আহমদের স্বাক্ষর। নম্বরপত্রে এমন অনিয়মের কারণে ওই বর্ষের ৮ জন শিক্ষার্থী ইনকোর্স দিয়েও কোনো নম্বর পাননি।

রাবির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অধ্যাপক আসাবুল হক জানান, বিষয়টি নিয়ে ওই বিভাগের তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কমিটির প্রধান এবং সদ্য প্রয়াত সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

রাবি’র উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান জানান, পরীক্ষার নম্বরপত্রে অস্বচ্ছতার কারণে বিভাগে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। সেটি তদন্ত করে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের দুজনকে পরীক্ষা সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম থেকে পাঁচ বছরের জন্য অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ২২ সেপ্টেম্বর বিভাগের একাডেমিক কমিটির সভায় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির আত্মহত্যার ঘটনায় তার সাবেক স্বামী তানভীর আহমদের প্রতি অনাস্থা জানায় ১৬ জন শিক্ষক। এর পরিপ্রেক্ষিতে তানভীর বিভাগের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে নিজেকে সাময়িক প্রত্যাহার করে নেন।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন