আজ বুধবার, ১৫ আগষ্ট ২০১৮ ইং, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



জিপি অ্যাক্সেলারেটরের সাথে পার্টনারশিপ করেছে বিক্রয়

Published on 08 September 2016 | 1: 53 pm

 

সোনালী  নিউজ ডেস্ক ::

জিপি অ্যাক্সেলারেটর সেরা পাঁচটি স্টার্টআপকে মেন্টরশিপ এবং মার্কেটিং সাপোর্ট দিতে পার্টনারশিপ করেছে বিক্রয়।এই পার্টনারশিপ ডিজিটাল স্টার্টআপগুলোকে নিজেদের ব্যবসাকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে।বিক্রয়ের মেন্টরশিপ, নেটওয়ার্কিং কাজে লাগিয়ে স্টার্টআপগুলো নিজেদের প্রোডাক্ট এবং সার্ভিসকে আরও বেশী কার্যকর করতে পারবে।

পার্টনারশিপ নিয়ে বিক্রয়ের মার্কেটিং ডিরেক্টর মিশা আলি জানান,  ‘আমরা জিপি অ্যাক্সেলারেটরের সাথে যুক্ত হতে পেরে আসলেই অনেক উচ্ছ্বসিত। আমরা সব-সময়ই উদ্যোক্তা এবং টেক-স্টার্টআপদের নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সাহায্য করতে চাই। স্টার্টআপগুলোকে শুধু মেন্টরশিপ দিয়েই নয়, আমরা নিজেরাও স্টার্টআপগুলোর কাছ থেকে শিখতে চাই। আমরা অনেকদিন থেকেই এসডি এশিয়ার সাথে কাজ করার জন্য মুখিয়ে আছি।তাছাড়া এই প্রোগ্রামে গ্রামীণফোনকে সাথে পেয়ে আমরা খুশী’।

 

বিক্রয় থেকে অভিজ্ঞ মেন্টররা প্রতি মাসেই স্টার্টআপদের জন্য বিভিন্ন সেশন পরিচালনা করবে। প্রোগ্রাম চলাকালীন সময়ে প্রত্যেক স্টার্টআপের সাথে মেন্টররা ট্যাগ থাকবেন এবং স্টার্টআপগুলোর বিভিন্ন উন্নয়ন প্রক্রিয়া সরাসরি মনিটর করবেন মেন্টররা।তাই মেন্টরদের কাছ থেকে হাতে-কলমে শিখে নিতে পারবে স্টার্টআপগুলো।

বিক্রয় স্টার্টআপদের জন্য মার্কেটিং সাপোর্টও দিবে। জিপি অ্যাক্সেলারেটের স্টার্টআপগুলোর জব পোস্টের জন্য বিক্রয় একটি ডেডিকেটেড জব পোর্টাল খুলবে, যেখানে বিক্রয়ের পক্ষ থেকে প্রথম ধাপের সিভি স্ক্রিনিং সম্পন্ন করা হবে।এমনকি যদি কোন স্টার্টআপের পণ্য বিক্রয়ডটকমে বিক্রি করার মত হলে, বিক্রয় তাদের জন্য আলাদা অনলাইন স্টোরও তৈরি করে দিবে।

গত সপ্তাহেই জিপি হাউজে বিক্রয়ের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মার্টিন ম্যালসট্রম স্টার্টআপদের সাথে একটি ইন্ট্রো সেশনে অংশ নিয়েছিলেন। সেখানে স্টার্টআপদের সাথে পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি বিক্রয় থেকে স্টার্টআপদের জন্য দেয়া সুবিধাগুলো এবং শুরুর দিকের টেক স্টার্টপাদের কিভাবে পরিচালনা করতে হয় তার পরামর্শ প্রদান করেন।

 

জিপি অ্যাকসেলারেটরঃ নতুন সব টেক স্টার্টআপদের সুযোগ করে দেবে ‘জিপি অ্যাকসেলারেটর’ প্রোগ্রাম। এসডি এশিয়া এবং গ্রামীণফোনের মধ্যকার চুক্তির কার্যক্রম শুরু হবে ফেব্রুয়ারি মাসে। ‘জিপি অ্যাকসেলারেটর’ প্রোগ্রামের জন্য সেরা ৫টি স্টার্টআপ বাছাই কর হবে। সেই প্রক্রিয়ার শেষে ডেমোডে তে তাদের প্রজেক্ট গুলো বিনিয়োগকারীদের সামনে তুলে ধরা হবে। নির্বাচিত প্রকল্প গুলো প্রজেক্ট বাস্তবায়নের জন্য ১০ লক্ষ্য টাকার বেশী করে পাবেন। এছাড়াও তারা গ্রামীণফোনের প্রধান কার্যালয় ‘জিপি হাউজে’ তাদের প্রকল্প নিয়ে কাজ করার জন্য অফিস স্পেস পাবেন। এই প্রকল্পের প্রধান লক্ষ্য সম্ভাবনাময় টেক স্টার্ট-আপ গুলো সঠিক মেন্টরশিপ এবং ফান্ডের মাধ্যমে এগিয়ে নেয়া।

এসডি এশিয়াঃ এসডি এশিয়া একটি কন্টেন্ট এবং ইভেন্ট প্লাটফর্ম যা বাংলাদেশের স্টার্টআপ ইকোসিস্টমকে তুলে ধরছে। ২০১৪ সালে ভেঞ্চার বিল্ডার মোস্তাফিজুর রাহমান, সামাদ মিরালি এবং ফায়াজ তাহেরের হাত ধরে যাত্রা শুরু করে এসডি এশিয়া।বাংলাদেশের টেক উদ্যোক্তা এবং টেক সংক্রান্ত ব্যবসাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই এসডি এশিয়ার মূল লক্ষ্য।এসডি এশিয়া দেশী-বিদেশি উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারীদের নিয়ে বিভিন্ন ওয়ার্কশপ, ইভেন্টের মাধ্যমে টেক ব্যবসা আরও সম্প্রসারিত করার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।সম্প্রতি ‘গ্রামীণফোন এক্সেলারেটর’ প্রোগ্রামের মাধ্যমে স্টার্ট আপদের ফান্ড এবং মেন্টর সংক্রান্ত সহযোগিতা করার জন্য টেলিকম কোম্পানি গ্রামীণফোনের সাথে বড় প্রকল্প হাতে নিয়েছে এসডি এশিয়া।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন