আজ সোমবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৮ ইং, ১০ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



আমাদের সন্দ্বীপ : আমাদের স্বপ্ন

Published on 29 August 2016 | 5: 20 am

জাহেদ বাউরিয়া সন্দ্বীপ (জেবিএস) ::

এক বিশাল সংখ্যা বিশিষ্ট তৃতীয় বিশ্বের দারিদ্র পীড়িত একটি দেশ হল আমাদের বাংলাদেশ । এই জনবহুল বাংলাদেশের বহু সমস্যায় জর্জরিত একটি দ্বীপ হল আমাদের প্রিয় জন্মভূমি সন্দ্বীপ । মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন সাগর বেষ্টিত দ্বীপ কন্যা সন্দ্বীপ ।
সন্দ্বীপ বাসীর অতীত ইতিহাস সংগ্রাম মুখর ও বিদ্রোহাত্মক কর্মকান্ডে জর্জরিত । সুদীর্ঘ দু’শ বছর ব্রিটিশ শাসনের যাঁতাকলে নিষ্পেষিত হয়েছি আমরা সন্দ্বীপবাসী । ভূলুণ্ঠিত হয়েছে আমাদের কৃষ্টি কালচার । পদে পদে লাঞ্ছনা বঞ্চনা শোষন আর নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল আমাদের পূর্ব পুরুষেরা । ব্রিটিশ শাসনের অবসান হলেও আমরা আমাদের প্রকৃত স্বাধীনতা অর্জন করতে পারিনি । বহুবিধ সমস্যা আর প্রতিকূলতা আমাদেরক ঘিরে রেখেছে । এসব সমস্যার অন্যতম কারণ হচ্ছে দারিদ্র । দারিদ্রের নির্মম কষাঘাতে জর্জরিত আমাদের সন্দ্বীপ । একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে আধুনিক জীবন যাপনের অন্তরায় হচ্ছে দারিদ্র ।
দারিদ্রের অন্যতম কারণ হচ্ছে বেকারত্ব । বেকারত্বের অন্যতম কারণ হচ্ছে কর্মসংস্থানের অভাব । কর্মসংস্থানের জন্য নেই মিল কারখানা । নেই কৃষি ভিত্তিক উৎপাদন বাড়ানোর জন্য বড় বড় মৎস্য ও ডেইরী ফার্ম । কর্মসংস্থানের অভাব হচ্ছে বিদ্যুতের অভাবে ।

ছায়া সুশীতল শান্তির নীড় আমাদের সোনালী দ্বীপে এক সময় মানুষের মুখে মুখে প্রবাদ ছিলো মাছে ভাতে বাঙ্গালী, পুকুর ভরা মাছ, গোয়াল ভরা গরু । এসব আজ কেবলই স্মৃতি । আজ নেই সুশীতল শান্তির নীড় । এর কারণ বিদ্যুত বিহীন আমাদের অন্ধকার দ্বীপ ।

সারা বাংলাদেশ যেখানে জাতীয় গ্রিডের আওতায় বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়েছে , হচ্ছে, সেখানে আমরা বঞ্চনা আর অবহেলার শিকার । যুগে যুগে শুধু আমরা দ্বীপবাসী আমাদের মৌলিক অধিকার আদায়ের সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি । বিদ্যুত আমাদের মৌলিক অধিকার । আমাদের আধুনিক ও আলোকিত জীবন যাপনের জন্য বিদ্যুত অপরিহার্য ।
দেরিতে হলেও সরকার উপলব্ধি করতে পেরেছে আমাদের অন্ধকার দ্বীপে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া খুব জরুরী । কারণ দেশের চালিকা শক্তি রেমিটেন্সের উল্লেখযোগ্য অংশ আসে আমাদের দ্বীপের সন্তানদের রক্ত পানি করা ঘামের বিনিময়ে । এছাড়াও দেশের সকল গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কর্মরত আছে দ্বীপের সন্তানেরা । তারা তাদের মেধা আর শ্রম বিলিয়ে দিচ্ছেন জাতীয় অর্থনীতির উন্নয়নে ।
বিদ্যুত নিয়ে আমাদের স্বপ্ন বহুদিনের । আমরা স্বপ্ন না দেখলেও সরকারের দায়িত্ব পুরো দেশকে বিদ্যুতায়ন করা । বর্তমানে একনেকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে সন্দ্বীপকে জাতীয় বিদ্যুৎ গ্রিডের আওতায় আনা । অনুমোদনের কিছুদিন পর ফেসবুকে শোরগোল শুনা গেছে অনুমোদন করা প্রকল্প বাতিল করা হয়ে । তাতেই গর্জে ওঠে সন্দ্বীপ ভিত্তিক অনলাইন নিউজ আইডি, অনলাইন এক্টিভিস্ট সহ সামাজিক সংঘঠনের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের আইডি গুলো । পাশাপাশি চলতে থাকে পক্ষে বিপক্ষে নোংরা ভাষায় কমেন্ট পাল্টা কমেন্ট । সম্ভবত তাতেই নড়েচড়ে বসেছে উপরের লোকেরা । শেষ পর্যন্ত আমরা জানতে পারলাম, সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে সন্দ্বীপকে জাতীয় গ্রিডের আওতায় আনা অত্যাধিক ব্যয়বহুল হলেও প্রকল্পটি চালু হবে । আগামী দুই বছরের ভিতর ঘরে ঘরে বিদ্যুত পৌঁছে যাবে আশা করা যাচ্ছে ।
আমরা আলো চাই । আমরা অবদান নিরবদান নিয়ে হৈ চৈ করতে চাই না । ফেসবুকে দেখতে পাচ্ছি অবদান নিয়ে দুই পক্ষের অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা পোস্টার, স্ট্যাটাস, কমেন্ট ।

বিদ্যুতের জন্য অনেকেই কাজ করেছেন । কাজ করাটা নৈতিক দায়িত্ব । উনাদের দায়িত্ব উনারা পালন করেছেন ।
দায়িত্ব পালনের জন্য ভোট পেয়েছেন এবং বেতন পাচ্ছেন । দায়িত্ব পালনের জন্য সচিবালয়ে চাকরি পেয়েছেন এবং বেতন পাচ্ছেন ।
এতেই উনারা খুশি আমরাও খুশি । উনারা কেউ অবদানের জন্য কাজ করছেন না । বরং সন্দ্বীপ ও সন্দ্বীপের মানুষের প্রতি ভালোবাসা আছে বলেই উনারা সামনে এগিয়ে যাচ্ছেন ।

প্রশ্ন রাখতে চাই, অবদানের বিনিময়ে যদি বিদ্যুত উৎপাদন হয় তাহলে ভোট আর সচিবালয়ে চাকরির বিনিময়ে দ্বীপবাসী কী পাবে ?

এটা নিয়ে আমরা অযথা তর্ক করার কোন মানে হয় না । এসব আমাদের দ্বীপবাসীর জন্য সুফল বয়ে আনবে না । বরং লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি হবে । আমাদের অনেকদূর যেতে হবে । আমাদেরকে অবদানের স্বপ্ন না দেখে কীভাবে একটি সমৃদ্ধ সন্দ্বীপ গড়ে তোলা সম্ভব, সেই স্বপ্ন দেখতে হবে । তাহলেই আলোকিত হবে সন্দ্বীপ । আলোকিত হবে অন্ধকার দ্বীপের ছয় লক্ষ মানুষের জীবন যাত্রা ।

লেখক : পরিচালক , শান্তি নিকেতন সন্দ্বীপ ।


Advertisement

আরও পড়ুন