আজ শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮ ইং, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



এক প্রকল্পেই ৩৮ গাড়ি কেনার প্রস্তাব

Published on 11 August 2016 | 7: 41 am

যমুনা নদীর ওপর রেলসেতু নির্মাণ প্রকল্পে গাড়ি ক্রয়ের প্রস্তাব নিয়ে আপত্তি তুলেছে পরিকল্পনা কমিশন। এক প্রকল্পে ৩৮ গাড়ি কেনার কোনো যৌক্তিক কারণ খুঁজে পায়নি কমিশন। গাড়ি কিনতে প্রায় অর্ধশত কোটি টাকা ব্যয়কে অত্যধিক উল্লেখ করে সংখ্যা কমিয়ে যৌক্তিক পর্যায়ে নামিয়ে আনার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, রেলপথ মন্ত্রণালয় ওই প্রকল্পের বিভিন্ন প্যাকেজের আওতায় জিপ, ডাবল কেবিন পিকআপ, এসইউভিএস ও মাইক্রোবাস কেনার প্রস্তাব দিয়েছে। এর মধ্যে ১২টি দামি জিপ, ১০টি ডাবল কেবিন পিকআপ, ১০টি মাইক্রোবাস এবং ৬টি পাঁচ দরজাবিশিষ্ট এসইউভিএস। সবমিলে এসব গাড়ি ক্রয়ে ব্যয় হবে প্রায় ৫০ কোটি টাকা। এর বাইরে গাড়ি ভাড়ার জন্যও বড় অঙ্কের অর্থ বরাদ্দ চেয়েছে রেলওয়ে। সম্প্রতি অনুমোদন পাওয়া কোনো প্রকল্পে গাড়ি কোনার জন্য এত ব্যয়ের প্রস্তাব পায়নি পরিকল্পনা কমিশন। কমিশন ১০টি গাড়ি উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) থেকে বাদ দিতে বলেছে।

পরিকল্পনা কমিশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, সম্প্রতি বিদেশি ঋণের প্রকল্পে প্রয়োজন না হলেও বিলাসবহুল গাড়ি কেনা হচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে এসব গাড়ি প্রকল্প শেষে কোথায় ব্যবহার হচ্ছে, তারও কোনো হিসাব নেই। যেখানে অল্প দামের গাড়ি কিনে কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব, সেখানে কোটি টাকার দামি গাড়ি কেনা হচ্ছে। যমুনা রেলসেতু নির্মাণ প্রকল্প এ ক্ষেত্রে বড় উদাহরণ। এক প্রকল্পে এত গাড়ি কেনার কোনো যুক্তি নেই।

মতামত জানতে চাইলে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, গাড়ি কেনার স্বচ্ছ মাপকাঠি থাকলে এ ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হতো না। এ জন্য ঋণের অর্থে এসব কেনা গাড়ির ভার একসময় জনগণের ওপর পড়ে।

পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য খোরশেদ আলম চৌধুরী বলেন, গাড়ি কেনার প্রস্তাবে যেসব অসঙ্গতি পাওয়া গেছে, পুনর্গঠিত প্রকল্প প্রস্তাবে তা ঠিক করে অনুমোদনের জন্য পাঠাতে বলা হয়েছে। কমিশন সূত্র জানায়, নির্মাণ প্যাকেজের আওতায় ২৩টি গাড়ি কেনার অনুমোদন দেবে কমিশন। পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের জন্য যাতায়াত ভাতা দিতে হবে। কোনো গাড়ি ভাড়া করা যাবে না।

প্রকল্প পরিচালক সাগর কৃষ্ণ চক্রবর্তী বলেন, অনেক হিসাব-নিকাশ করে কমিশনের কাছে প্রস্তাব করা হয়েছে। এমন বড় একটি প্রকল্পে অনেক গাড়ি প্রয়োজন। এ জন্য ভাড়া না করে কেনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। কারণ ভাড়া করলে আরও অনেক বেশি খরচ হয়। তিনি বলেন, প্রকল্পে অর্থায়নকারী সংস্থা জাইকা ও ইআরডির সঙ্গে আলোচনা করে গাড়ির সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে। এখানে অপ্রয়োজনীয় প্রস্তাব নেই।

যমুনা সেতুর ওপর বিদ্যমান বঙ্গবন্ধু সেতুর ৩০০ মিটার উত্তরে ৪ দশমিক ৮ কিলোমিটার ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন রেলসেতু নির্মাণ করা হবে। ২০২৩ সালের মধ্যে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। প্রায় ৯ হাজার ৭৪০ কোটি টাকা ব্যয়ের প্রকল্পটিতে জাইকা প্রায় আট হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন