আজ বৃহঃপতিবার, ২৪ মে ২০১৮ ইং, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



খোলার প্রথম দিন নবীনদের পদচারণায় মুখর কলেজ

Published on 11 July 2016 | 5: 49 am

ঈদের টানা ছুটি শেষে সরকারি অফিসআদালতের পাশাপাশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোও খুলেছে গতকাল। খোলার প্রথম দিনই রোববার নবীনদের পদচারণায় মুখর ছিল কলেজগুলো। চোখে নতুন স্বপ্ন নিয়ে নতুন উদ্যমে কলেজের আঙিনায় গতকাল প্রথম পা রাখে সদ্য এসএসসি উত্তীর্ণরা। নবীনদের বরণ করে নিতে আগে থেকেই প্রস্তুতি ছিল কলেজগুলোরও। সরকারিবেসরকারিসহ নগরীর অধিকাংশ কলেজেই গতকাল অনুষ্ঠিত হয় নবীন বরণ। অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ করার কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর জেসমিন আক্তার ও চট্টগ্রাম সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শাহেদা ইসলাম। আর গতকাল আনুষ্ঠানিক ভাবে বরণের পর আজ (সোমবার) থেকে একাদশের ক্লাস শুরুর কথা জানিয়েছেন তাঁরা। তবে গতকালই (রোববারই) একাদশের ক্লাস শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন সরকারি কমার্স কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আইয়ুব ভূইয়া। ক্লাসের প্রথম দিন প্রায় ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থীর উপস্থিতি ছিল জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা প্রথমদিনই ক্লাস শুরু করে দিয়েছি। ক্লাশে উপস্থিতিও ছিল সন্তোষজনক। মঙ্গলবার (আগামীকাল) আনুষ্ঠানিক ভাবে নবীনদের বরণ করে নেয়া হবে বলেও জানান কলেজ অধ্যক্ষ।

এদিকে, একাদশে নতুন ভর্তি হওয়া সাড়ে আটশ’র প্রায় শতভাগ শিক্ষার্থী রোববার নবীন বরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল বলে জানান চট্টগ্রাম কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর জেসমিন আক্তার। আর ভর্তি হওয়া ১২’শ ছাত্রীকে রোববার আনুষ্ঠানিক ভাবে বরণ করে নেয়া হয় জানিয়ে চট্টগ্রাম সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শাহেদা ইসলাম বলেন, সোমবার (আজ) থেকে তাদের ক্লাস শুরু হবে। কলেজের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে বরণ করে নেয়ায় খুশি নবীন শিক্ষার্থীরাও। অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে চট্টগ্রাম কলেজের মানবিক শাখায় ভর্তি হওয়া মো. রিদুয়ান বলেন– ‘আমার স্বপ্ন ছিল চট্টগ্রাম কলেজে পড়ার। সেই স্বপ্ন আজ সত্যি হয়েছে। আর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমাদের বরণ করে নেয়ায় অনেক ভালো লাগছে। সোমবার থেকে ক্লাস শুরু হবে বলে স্যাররা বলেছেন। এখন প্রথম ক্লাসের অপেক্ষায় আছি।’

শুধু এই কয়টি নয়, নগরীর সরকারিবেসরকারি অন্যান্য কলেজগুলিতেও আনুষ্ঠানিক ভাবে নবীনদের বরণ করে নেয়া হয় বলে জানা গেছে। তবে, একাদশের নবীন শিক্ষার্থীদের পদচারণায় গতকাল কলেজ মুখর থাকলেও অন্যান্য শ্রেণির (ডিগ্রী, অনার্সমাষ্টার্স পর্যায়ের) শিক্ষার্থীদের তেমন উপস্থিতি ছিল না বলে জানান কলেজ অধ্যক্ষরা।


Advertisement

আরও পড়ুন