আজ বৃহঃপতিবার, ২৪ মে ২০১৮ ইং, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



বড় নাশকতার লক্ষ্যে উত্তরায় অস্ত্র মজুদ করা হয়

Published on 19 June 2016 | 4: 56 am

দেশব্যাপী বড় ধরণের নাশকতার জন্যই উত্তরায় এসব অস্ত্র মজুদ করা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন উত্তরা বিভাগের উপ-কমিশনার বিধান ত্রিপুরা। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী যে সাঁড়াশি অভিযান চলছে, তাতে ভীত হয়েই এই নির্জন এলাকায় অস্ত্র ও গোলাবারুদ ফেলে রাখা হয়েছিল বলে জানান তিনি। উত্তরায় অস্ত্র উদ্ধার অভিযান পরিচালনার সময় শনিবার রাত ১০ টার দিকে সাংবাদিকদের এ সব তথ্য জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন,  এর সঙ্গে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক চক্র জড়িত। এ পর্যন্ত নালা থেকে ৯৫টি সেভেন পয়েন্ট ৬২ পিস্তল, দুটি নাইন এমএম পিস্তল, ১ হাজার ৬০ রাউন্ড গুলি, ২৬৩টি এসএমজি ম্যাগজিন ও ১০টি বেয়নেট উদ্ধার করা হয়েছে। আটটি কালো ব্যাগে ১৪০টি বাক্সে এসব অস্ত্র ছিলো। সঙ্গে অস্ত্র মেরামতের বিভিন্ন সরঞ্জামাদিও ছিল।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান জানান, সম্প্রতি দক্ষিণখান থাকা থেকে তুরাগ থানায় বদলি হওয়া এক কনস্টেবল দুপুরে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে ওই খালপাড় দিয়ে যাচ্ছিলেন। এক সময় সন্তানকে প্রস্রাব করাতে গিয়ে নম্বরপ্লেট বিহীন একটি কালো পাজেরো জিপ এবং তার পাশে চার-পাঁচজন লোককে দেখেন। তাদের আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় তুরাগ থানায় ফোন করে তিনি বিষয়টি জানান। পরে তুরাগ থানার ওসির নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের নিয়ে খালে তল্লাশি চালায়। খালের এক পাড় থেকে সাতটি ট্রাভেল ব্যাগ পাওয়া যায়। পরে ব্যাগগুলো তল্লাশি চালিয়ে অস্ত্র-গুলি উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরো বলেন, অস্ত্রগুলো সচল এবং এখনই ব্যবহার উপযোগী । কে বা কারা এসব অস্ত্র ও গুলি সেখানে রেখেছে সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারেননি পুলিশ কর্মকর্তারা।

বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে, বলে জানান তিনি।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন্স অ্যান্ড মেনটেন্যান্স) মেজর এ টি এম শাকিল নেওয়াজ খান বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে আসি। এরপর নালা থেকে ডুবুরিরা সাতটি ব্যাগসহ এসব অস্ত্র উদ্ধার করে।

এদিকে ঘটনাস্থলের আশপাশে পুরো এলাকা র‍্যাব, পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘিরে রেখেছে। দুপুর থেকে শুরু হওয়া দিয়াবাড়ী বেরিবাঁধ সংলগ্ন ওই খালে অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার অভিযান রাত পর্যন্ত চলছিল।


Advertisement

আরও পড়ুন