আজ সোমবার, ২০ আগষ্ট ২০১৮ ইং, ০৫ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



ডিগ্রি না থাকা ডাক্তার-নার্স, ৪ হাসপাতালকে জরিমানা

Published on 12 June 2016 | 4: 03 am

ফেনীতে চার বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে সাড়ে চার লাখ টাকা জড়িমানা আদায় করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো জেনারেল প্রাইভেট হাসপাতাল, রয়েল হাসপাতাল, মহিপাল মেডিকেল সেন্টার ও মডার্ন সেন্ট্রাল হাসপাতাল।

বুধবার অভিযান চালিয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে এ জরিমানা আদায় করার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী হাকিম সোহেল রানা।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, ফেনী শহরে ব্যাঙের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বুধবার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় চিকিৎসা খাতে অনিয়ম রোধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে ফেনী শহরের জেনারেল প্রাইভেট হাসপাতালকে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, রয়েল হাসপাতালকে ৫০ হাজার টাকা, মহিপাল মেডিকেল সেন্টারকে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও মডার্ন সেন্ট্রাল হাসপাতালকে ১ লাখ টাকাসহ মোট চারটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে সাড়ে চার লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী হাকিম সোহেল রানা পরিবর্তন ডটকমকে জানান, অভিযান চলাকালে দেখাযায় দণ্ডপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে তিনটিতেই কোনো রেজিস্টার্ড নার্স (সেবিকা) নেই। জেনারেল প্রাইভেট হাসপাতাল ও রয়েল হাসপাতালে দুইজন চিকিৎসক ছাড়া কারোরই স্থায়ী সনদপত্র নেই। এদিকে মহিপাল মেডিকেল সেন্টার ও মডার্ন সেন্ট্রাল হাসপাতালে নেই কোনো নিয়মের বালাই। প্যাথলজিক্যাল রিপোর্টে নেই কোনো প্যাথলজিস্টের স্বাক্ষর। অভিযোগ রয়েছে মনগড়াভাবে দেওয়া হয় এ সব রিপোর্ট।

এছাড়া ল্যাবের ফ্রিজে পাওয়া যায় ব্যবহৃত ব্লাড ট্রান্সফিউশান সেটসহ বিভিন্ন প্রকার ওষুধপত্র। এতে সাধারণ রোগীরা অহরহ প্রতারণা শিকার হচ্ছেন। এমনকি স্বাস্থ্যঝুঁকি ও জীবনহানির ঘটনাও ঘটছে। ফেনীর সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবার মান শতভাগ নিশ্চিত করতে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে উপস্থিত ছিলেন ফেনী সিভিল সার্জন কার্যালয়ের ডাক্তার মো. মুসা।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন