আজ শুক্রবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৮ ইং, ১৪ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



৪২ বছর পরিশ্রম করে আজকের অবস্থানে এসেছি- চেয়ারম্যান, যমুনা গ্রুপ

Published on 03 June 2016 | 12: 56 pm

যমুনা ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড অটোমোবাইল লিমিটেডের দ্বিতীয় ডিলার সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম।

‘দীর্ঘ ৪২ বছর ধরে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত পরিশ্রম করে আজকের অবস্থানে এসেছি। এ দীর্ঘ সময়ে ব্যাংকের এক টাকারও ঋণখেলাপি হইনি, অন্যের সম্পদ লুঠ করিনি, পুঁজি বাজার থেকে একটি টাকাও হাতিয়ে নেইনি। শুধু পরিশ্রম ও সততার সঙ্গে ব্যবসা করেই আজকের অবস্থানে এসেছি। গড়েছি ২৬টি শিল্প প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ১৬ কোটি মানুষকে সেবা করে আসছি। তাদের কাছে মানসম্পন্ন পণ্য পৌঁছে দিচ্ছি।’

এভাবেই নিজের জীবনের কথা তুলে ধরে ব্যবসায়ীদের উদ্বুদ্ধ করলেন দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপতি, উদ্যোক্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম।

এ সময় ধনীদের সম্পর্কে মানুষ ভ্রান্ত ধারণা পোষণ করে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনেকেই ধারণা করেন- জোর-জবরদখল করে, ব্যাংকের টাকা মেরে ও পুঁজি বাজারের টাকা লুট করে বড়লোক হওয়া যায়।

এসব কাজের সঙ্গে নিজে কখনও জড়াননি উল্লেখ করে যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমি ব্যাংক থেকে টাকা নিয়েছি, ব্যবসা করে লভ্যাংশ থেকে ঋণ পরিশোধ করেছি। নিজে মুনাফা করেছি, তবে খেলাপি হইনি। কারণ আমি বিশ্বাস করি অন্যের টাকা মেরে ভাগ্যের পরিবর্তন হয় না। সততা ও পরিশ্রমের মাধ্যমেই আজকের এই অবস্থানে এসেছি। ‘

শুক্রবার গাজীপুরের সিনাবোতে অনুষ্ঠিত হয়েছে যমুনা ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড অটোমোবাইল লিমিটেডের দ্বিতীয় ডিলার সম্মেলন। এতে দেশের নানা প্রান্ত থেকে হাজির হয়েছিলেন ছয় শতাধিক ডিলার। তাদের সামনে নিজের ব্যবসায়ী জীবনের উদ্দীপণামূলক অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান।

সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, যমুনা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান, দৈনিক যুগান্তরে প্রকাশক ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি, যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম, পরিচালক মনিকা নাজনীন ইসলাম ও রোজালিন ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সহধর্মীনী তানিয়া মেহনাজ ইসলাম এবং যমুনা ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড অটোমোবাইল লিমিটেডের পরিচালক (উৎপাদন) লিও সুকুন প্রমুখ।

যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম জানান, মানুষের সেবা করার উদ্দেশ্যে তিনি ব্যবসা শুরু করেছিলেন। দীর্ঘ ৪২ বছরের ব্যবসায়ী জীবনের পথ চলায় সেই উদ্দেশ্য পূরণে সফল হয়েছেন বলেও জানান তিনি।

যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান ‘দেশের জন্য, যমুনার পণ্য’এই কথাটা অন্তরে ধারণ করে ডিলারদের সততা ও আন্তরিকতার সঙ্গে ব্যবসা করার পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, জনগণের কাছে যমুনার মানসম্পন্ন পণ্য পৌঁছে দিতে হবে। এক্ষেত্রে সমস্যায় পড়লে ডিলারদের সরাসরি তার সঙ্গে যোগাযোগের পরামর্শ দেন।

উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে গুণগত মানসম্পন্ন পণ্য তৈরি করছে যমুনা ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড অটোমোবাইল লিমিটেড। সারা দেশে ছয়শতাধিক ডিলার স্বল্পতম সময়ে যমুনার পণ্য ঘরে পৌঁছে দিচ্ছেন।

সম্মেলনে সাফল্যের স্বীকৃতি দিয়ে ডিলারদের  পুরস্কৃত করেন যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম। তিনি সেরা তিনজন ডিলারকে যথাক্রমে ৫ লাখ,৩ লাখ এবং ২ লাখ টাকা পুরস্কার দেন।

ডিলারদের সাফল্যের ভূয়সী প্রশংসা করে তিনি বলেন, গত বছরের সম্মেলনে আপনাদের কাছে অঙ্গীকার করেছিলাম- সেরাদের সেরা ডিলার বাছাইয়ের মাধ্যমে পুরস্কৃত করবো। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক আজ আপনাদের হাতে পুরস্কারের টাকা তুলে দিয়েছি।

এ সময় আগামী বছরের সাফল্যের জন্য ডিলারদের আরও বেশি পুরস্কার দেয়ার  ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, আগামী বছর ৫ কোটি টাকার যমুনার পণ্য বিক্রয়কারী ডিলারদের মালয়েশিয়া ভ্রমণের সুযোগ করে দেয়া হবে। যারা ১০ কোটি টাকার পণ্য বিক্রি করবেন তাদের সিঙ্গাপুর ভ্রমণের সুযোগ করে দেয়া হবে।

এছাড়া ১৫ কোটি টাকার পণ্য বিক্রয়কারী ডিলারদের ৫ ভরি স্বর্ণালংকার এবং ২০ কোটি টাকার পণ্য বিক্রয়কারী ডিলারদের ‘ব্র্যান্ড নিউ কার’ প্রদানের ঘোষণা দেন যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান।

টার্গেট পূরণের মাধ্যমে সারা দেশের যেকোনো ডিলার নির্ধারিত পুরস্কারের জন্য মনোনীত হবেন বলে ঘোষণা দেন তিনি।

এর আগে সকালে যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম ডিলারদের নিয়ে গাজীপুরে অবস্থিত যমুনা ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড অটোমোবাইল লিমিটেডের ফ্রিজের কারখানা পরিদর্শন করেন।


Advertisement

আরও পড়ুন