আজ রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ইং, ১০ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



লিচুর ১০ গুণ

Published on 02 June 2016 | 2: 53 am

বাজার এখন লিচুতে ভরপুর। খুব অল্পসময়ের এই ফল বাজারে মেলেও সামান্য সময়ের জন্য। কিন্তু যে কদিন থাকে, সে কদিনেই মন জয় করে নেয় সবার। বহু প্রতীক্ষিত সাধের ফল এই লিচু, তবে হরেক গুণেরও।

-ত্বকে বয়সের ছাপ কমাতে খুবই কাজ দেয় লিচু প্যাক। ৪ থেকে ৫টি লিচু ছাড়িয়ে পাকাকলার এক-চতুর্থাংশ দিয়ে মেখে প্যাক বানিয়ে নিন। হাল্কা করে মাসাজ করে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

ত্বকের কালো দাগছোপ দূর করতেও কাজ দেয় লিচু। ৪ থেকে ৫টি লিচু ছাড়িয়ে চটকে মেখে নিন। তার পর তুলো ওই মিশ্রণে ভিজিয়ে কালো দাগগুলিতে লাগান। ১৫ মিনিট পরে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

-ত্বকের ট্যান দূর করতে ৩ থেকে ৪টি লিচু ছাড়িয়ে চটকে নিন। তার পর তাতে একটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল চিপে সলিউশনটি মিশিয়ে নিন। এবার এই মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে রেখে ৩০ মিনিট পরে ঠাণ্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।

-ঘন চুল গজাতে সাহায্য করে লিচু। ৭ থেকে ৮টি লিচুর জুস বানিয়ে নিন এবং তাতে ২ টেবিলচামচ অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি স্ক্যাল্পে লাগান। এক ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন। তারপর হালকা শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

-ক্যানসার প্রতিরোধক রয়েছে লিচুতে। তাই নিয়মিত এই ফল খাওয়া উচিত সিজনের সময়ে।

-অনেকেই হয়তো জানেন না হার্টের পক্ষে খুবই উপকারী লিচু কারণ এতে রয়েছে অলিগোনল যা নাইট্রিক অক্সাইড তৈরি হতে সাহায্য করে। এই নাইট্রিক অক্সাইড আবার রক্ত চলাচলে সাহায্য করে।

-নিয়মিত পরিমিত এই ফল খেলে হজমশক্তি ভাল হয়।

-লিচুর মধ্যে রয়েছে ফাইটোকেমিক্যালস যা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসেবে কাজ করে এবং চোখে ছানি পড়া আটকায়।

-লিচুর অলিগোনল ভাইরাসকে বাড়তে দেয় না তাই নিয়মিত লিচু খেলে শরীরে জ্বর বা ইনফেকশন থেকে প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

-এতো সব গুণ থাকা সত্ত্বেও লিচু কিন্তু লো ক্যালরি ফুড তাই ওজন বাড়ার কোনও সম্ভাবনা নেই।


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন