আজ মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ ইং, ০৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



সন্দ্বীপে যুবলীগের মানববন্ধন : বশিরের হত্যাকারীদের গ্রেফতারের মাধ্যমে দ্রুত বিচার দাবি

Published on 29 April 2016 | 2: 18 am

 সোনালী নিউজ ডেস্ক :: সন্দ্বীপের মগধরা ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে প্রতিপক্ষের হামলায় বশির আহম্মদ (৩২) নামে এক যুবলীগ কর্মী খুন হয়েছেন।
গত ২৭ এপ্রিল বুধবার রাত ৮ টায় মগধরা নোয়ার হাট সংলগ্ন এলাকায় তার ওপর সশস্ত্র হামলা চালানো হয়। মুমুর্ষূ অবস্থায় বশীরকে সন্দ্বীপ মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে গেলে মধ্যরাতে হাসপাতালে তার মৃত্যু ঘটে। বশির মগধরা ৭ নং ওয়ার্ডের মৃত আব্দুল জলিলের পুত্র। পুলিশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছে। নিহত বশিরের স্বজনরা এ হত্যাকাণ্ডের জন্য আওয়ামী লীগ নেতা শাহীন চেয়ারম্যান ও হুজুর রহমানকে দায়ী করেছেন। এ ঘটনায় পারিবারিকভাবে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকায় শাহীন গ্রুপ ও সমীর গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে হামলা পাল্টা হামলা চলে আসছিল। প্রতিপক্ষের হামলায় কয়েক মাস আগে খোদ শাহীন চেয়ারম্যান সন্ত্রাসীদের হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন এবং বিপক্ষের হামলায় সমীরের ছোট ভাই মনির নির্মমভাবে খুন হয়েছিলেন।

13118883_249755962050745_1990159996554682649_n

গত কিছুদিন ধরে অভ্যন্তরীণ কোন্দলে কোনঠাসা হয়ে সমীর গ্রুপের কর্মীরা আত্মগোপনে ছিল। এ দিকে শাহীন গ্রুপের নেতা হুজুর রহমান দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পর বুধবার জামিনে ছাড়া পেয়ে সন্দ্বীপ গেলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে। ওই দিন রাত ৮ টায় একদল সন্ত্রাসী বশিরের বাড়ির সামনে পুকুর ঘাটে তার ওপর অতর্কিতে হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শী বশিরের ছোট বোন তফুরা জানান, হুজুর রহমান, ফারুক, শাকিলের নেতৃত্বে তার ভাইয়ের ওপর সন্ত্রাসীরা সশস্ত্র হামলা চালায়। তারা তার ওপর গুলি ছুঁড়ে। পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মকভাবে আঘাত করে এবং চেয়ারম্যান শাহীনের বাড়ির দিকে নিয়ে যায়। রাত ১০ টায় মুমুর্ষূ অবস্থায় বশীরকে সন্দ্বীপ মেডিক্যাল সেন্টারে নিয়ে গেলে মধ্যরাতে হাসপাতালে তার মৃত্যু ঘটে।

13083357_249068495452825_7346137248594332141_n

নিহত বশীর আহম্মদের বড় ভাই আজম খান অভিযোগ করে বলেন, ‘শাহীন চেয়ারম্যান ও হুজুর রহমানের লোকজন পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে তার ভাইকে হত্যা করেছে।’

এ ব্যাপারে সন্দ্বীপ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সম্পাদক মাকছুদুর রহমান শাহীন চেয়ারম্যান ও হুজুর রহমানের বক্তব্য জানার জন্য তাদের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে মোবাইল সংযোগ বন্ধ পাওয়া যায়।

এ দিকে হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে গত ২৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকেল ২ টায় স্থানীয় নোয়াহাটে উপজেলা যুবলীগের আয়োজনে মানববন্ধন পালিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান চেয়ারম্যান, মগধরা ইউনিয়নের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান এস.এম আনোয়ার হোসেন, সন্দ্বীপ উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ছিদ্দিকুর রহমান, রবিউল আলম, সমীর মেম্বার ও মাকছুদুর রহমান। বক্তারা অবিলম্বে যুবলীগ কর্মী বশিরের হত্যাকারীদের গ্রেফতারের মাধ্যমে দ্রুত বিচার দাবি করেন এবং উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সবাইকে শান্ত থাকার আহবান জানান।

হত্যাকাণ্ডের পর থেকে এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শনে সহকারী পুলিশ সুপার (সীতাকুণ্ড সার্কেল) সালাউদ্দিন সিকদার সন্দ্বীপ গেছেন। সন্দ্বীপ থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুস সালাম জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

তথ্য সুত্র : আজাদী, ২৯.০৪.২০১৬


এখানে খুজুন


আরও পড়ুন